banglanewspaper

স্কুলের সহপাঠী ও নিচু জাতের এক ছেলের সঙ্গে প্রেম করায় মেয়েকে গলা টিপে হত্যা করেছেন এক বাবা। সোমবার রোমহর্ষক এ ঘটনা ঘটেছে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে।

নিহত তরুণীর নাম বৈষ্ণবী (২০)। অন্ধ্রপ্রদেশের প্রকাশম জেলার বাসিন্দা বৈষ্ণবীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল তারই কলেজের এক সহপাঠীর। এই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি বৈষ্ণবীর বাবা ভেঙ্কা রেড্ডি। এর আগেও ভিন জাতে বিয়ে করার দায়ে নিজের সন্তানকে নৃশংসভাবে খুনের ঘটনা ঘটে বিহার, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ এবং উত্তরপ্রদেশেও।

তরুণীর পরিবারের সদস্যদের দাবি, ছেলেটির সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে একাধিকবার নিষেধ করেছেন ভেঙ্কা। এই নিয়ে বাবা মেয়ের প্রায়ই কথা কাটাকাটি হতো। শুধু তাই নয়, মেয়েকে মারধরও করতেন তিনি।

ভারতীয় একটি গণমাধ্যম বলছে, সোমবার সকালে বাড়ির বাইরে বৈষ্ণবীর নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন প্রতিবেশীরা। পরে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা বৈষ্ণবীকে মৃত ঘোষণা করেন।

জেলার পুলিশ সুপার শ্রীনিবাস রাও বলেন, ময়নাতদন্তের রিপোর্টে তরুণীকে শ্বাসরোধ হত্যার আলামত পাওয়া গেছে। তার গলায় কাপড় বা দড়ি দিয়ে ফাঁস লাগানো হয়েছিল। এছাড়া শরীরেও একাধিক জখম রয়েছে।

পুলিশ সুপার বলেন, শুধুমাত্র প্রেম করার জন্য নিজের মেয়েকে খুন করতে পারেন একজন বাবা সেটা ভাবা যায় না। বৈষ্ণবী পরিবারের অমতে বিয়ে করেননি, পালিয়েও যাননি। শুধুমাত্র সন্দেহের বশে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হলো। মেয়েকে হত্যার দায়ে ভেঙ্কা রেড্ডিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ট্যাগ: bdnewshour2 হত্যা