banglanewspaper

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) ভুলে তিন বছর সাজা খাটা নিরপরাধ জাহালমের মতো আর কেউ কারাগারে আছে কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

এছাড়া সরকার দেশের কারাগারগুলোতে অচল-অক্ষম হয়ে পড়া কয়েদীদের মুক্তি দেওয়ার কথা ভাবছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সার্বিক আইনশৃঙ্খলা ও আনুষাঙ্গিক বিষয়ে সভা শেষে সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সমস্ত জেলায় কারাগারের ভেতরে দীর্ঘদিন জেলখাটা কোনও কয়েদি অচল বা অক্ষম হয়ে গেলে তাদেরকে চিহ্নিত করে মুক্তি দেওয়ার কথা ভাবছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কারাগারে বিভাগ থেকে এই কাজটি করা হবে।’

‘শুধু জাহালম নয়, তার মতো আর কোনও মানুষ জেলখানার অভ্যন্তরে আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ধরনের কোনও ঘটনা ঘটলে সরকার তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেবে। নিরাপরাধ জাহালমের জেলখাটার বিষয়ে তদন্ত হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে অবশ্যই দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

‘বিএসএফ কেন হত্যাকাণ্ড করছে আলোচনা করবো’

বিগত কয়েকবছর সীমান্তে হত্যা কমে এলেও চলতি বছরের জানুয়ারিতেই ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে অন্তত ৭ বাংলাদেশি প্রাণ হারিয়েছেন। আর চলতি ফেব্রুয়ারিতে নিহত হয়েছেন আরো দুই বাংলাদেশি।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সীমান্তে আর হত্যাকান্ড যেন না হয় সেজন্য ভারতের সঙ্গে আমরা বসে মিটিং করে সিদ্ধান্ত নিব। বিএসএফ কেন হত্যাকান্ড করছে তা নিয়ে আমরা কথা বলবো। তাদের পক্ষ থেকে সীমান্তে হত্যার কোনো অর্ডার না হয় সেজন্য আমরা আলোচনা করবো। আশা করছি আমরা বসতে পারলে তা সমাধান হবে। এটা বিগত কয়েক বছর এটি বন্ধ ছিল।’

শহীদ মিনারে দায়িত্ব পালন করবে বিএনসিসির পাঁচশ সদস্য

আসন্ন একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদ মিনারের সার্বিক দায়িত্ব এবছরও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পালন করবে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘শহীদ মিনারে নিরাপত্তার জন্য আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করবে। তাদের সঙ্গে বিএনসিসির ৫০০ সদস্যও আমাদের বিভিন্ন বাহিনীর সঙ্গে থাকবে। সার্বিক নিরাপত্তার জন্য পুলিশ-র‌্যাব, গোয়েন্দা সংস্থা, প্রয়োজনে বিজিবি-আনসার কাজ করবে।’

‘শহীদ মিনারে কোনো হকার অস্থায়ী দোকান নিয়ে বসতে পারবে না। পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে। কেউ অসুস্থ হলে চিকিৎসার জন্য তাৎক্ষনিক ব্যবস্থার বিষয়টি আমরা নিশ্চিত করেছি। এছাড়াও সাদা পোশাকধারী পুলিশও নিয়োজিত থাকবে। দেশী বিদেশী যারাই আসবে প্রতিবারের মতো এবারও তাদের নিরাপত্তার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। একদিকে রাস্তা মেরামতে খোঁড়াখুড়ি চলছে, বইমেলা চলছে, সব মিলিয়ে ভাল ট্রাফিক ব্যবস্থা করতে আমরা একটি রোডম্যাপ তৈরী কররো।’

এছাড়া একুশে ফেব্রুয়ারি সারা দেশেও সবাই যাতে নির্বিঘ্নে দিবসটি উদযাপন করতে পারে তার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে বলেও জানান আছাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

ট্যাগ: bdnewshour24 জাহালম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী