banglanewspaper

পতঙ্গশূন্য পৃথিবী দেখছেন বিজ্ঞানীরা! আগামী একশ’ বছরে চেনা জানা শতসহস্র কীটপতঙ্গ পৃথিবী থেকে বিদায় নেয়ার আশঙ্কা করছেন তারা। যার ফলে প্রকৃতির ভারসাম্যে ক্ষতিকর প্রভাব পড়বে।

সম্প্রতি এ সংক্রান্ত ৭৩টি ঐতিহাসিক রিপোর্ট বিশ্লেষণ করে আন্তর্জাতিক গবেষকরা এমন তথ্য জানিয়েছেন। গবেষক দল বলছেন, একশ’ বছরের মধ্যে পৃথিবী থেকে কীটপতঙ্গ নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।

একশ’ বছর যদিও খুব কম সময় নয়। তবে যে হারে পতঙ্গকূলের ধ্বংস হচ্ছে তাতে ভবিষ্যৎ পৃথিবী পতঙ্গশূন্য এটা নিশ্চিত। এমনকি ঘরের কোনায় থাকা আরশোলাও আর থাকবে না।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, কীটনাশকের যথেচ্ছা ব্যবহার হচ্ছে। ফসল বাঁচাতে চাষীরা কীটনাশক প্রয়োগে কুণ্ঠিত নন। চাষের জমির রাসায়নিকে মাটিতে মিশে থাকা পোকারাও মরছে।

ইদানিং চাষীরা জৈবচাষে ফিরলেও তা নগণ্য। পরিসংখ্যানে বলা হচ্ছে, বিশ্বজুড়ে বছরে ২.৫ শতাংশ হারে পতঙ্গ নিশ্চিহ্ন হচ্ছে। বিগত তিন হাজার বছরে এ হার একটুও পরিবর্তন হয়নি।

বলা হয়, হারিয়ে যাওয়া কীটপতঙ্গের মধ্যে প্রথম দিকে রয়েছে মৌমাছি, পিঁপড়া ও গুবরেপোকার মতো প্রাণী। স্তন্যপায়ী প্রাণী, পাখি বা সরীসৃপের তুলনায় এসব পতঙ্গ ৮ গুণ হারে কমে যাচ্ছে।

তবে বাইরের চেয়ে অপেক্ষাকৃত অনুকূল পরিবেশ থাকায় বাসাবাড়িতে থাকা মাছি বা তেলাপোকা কম হারে কমছে। ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্সের অধ্যাপক গুলসন এ বিষয়ে বলেছেন, মানুষের আবাস্থলে মাছি ও তেলাপোকা সহজে নিজেদের মানিয়ে নিতে পারে। কিন্তু বাইরে থাকা পতঙ্গগুলো উষ্ণ আবহাওয়া ও বিভিন্ন প্রতিকূল পরিবেশ মানিয়ে নিতে পারে না।

ট্যাগ: bdnewshour24 একশ বছর পতঙ্গশূন্য পৃথিবী