banglanewspaper

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ছেলের বউকে ভালোবেসে ফেলেছিলেন ৬২ বছর বয়সী ছোটা সিং। বিয়ে করার সিদ্ধান্তও নিয়ে ফেলেছিলেন। কিন্তু বউতো ছেলের। তাই ছেলে রাজবিন্দর সিং-কে হত্যা করে পথের কাঁটা সরাতে চেয়েছিলেন ছোটা সিং।

ঘটনাটি ভারতের ফরিদকোটের জাইতু সাব ডিভিসনের ডাবরি খানা গ্রামে। ৪০ বছর বয়সী ছেলে রাজবিন্দরকে হত্যার অভিযোগে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে বাবা ছোটাকে।

ভারতীয় গণমাধ্যম নিউজ১৮ টিভির খবরে বলা হয়, ছেলে রজবিন্দর সিং নিজের ঘরে ঘুমোচ্ছিলেন। সেই সময় ধারালো অস্ত্র নিয়ে বাবা ছোটা আঘাত করেন।

খুন করার পর তিনি ছেলের দেহ টুকরো টুকরো করে কাটেন। যাতে বিভিন্ন জায়গায় দেহের টুকরো সহজেই লুকিয়ে ফেলতে পারেন। তিনি প্লাস্টিকে প্লাস্টিকে দেহ ভরে নোংরা ফেলার জায়গায় সেটা ফেলেও দেন।

অভিযুক্তের বড় ছেলে জানিয়েছেন, যখন প্লাস্টিকে করে দেহ ফেলতে দেখতে চাইছিলেন তখন তাদের এক আত্মীয় ঘুম থেকে উঠে রক্তের দাগ দেখতে পান৷।তিনিই পুলিশকে ঘটনাটি বলে দেন।

রাজবিন্দরের সঙ্গে জসবীর কৌরের ১২ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল। তাদের দু‘টো ছেলেও আছে। জসবীরের জন্যেই এভাবেই নিজের ছেলেকে মেরে ফেললেন তিনি। তার বিরুদ্ধে সেকশন ৩০২ (খুন), ২০১ (তথ্য প্রমাণ লোপাট) করার চার্জ দায়ের করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 পুত্রবধূ ছেলেকে খুন