banglanewspaper

বাকৃবি প্রতিনিধি (ময়মনসিংহ): বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ছাত্রলীগ কর্মীদের বিরুদ্ধে জোর করে তালার চাবি ছিনিয়ে নিয়ে দোকান বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে উদীচি চত্বরে ওই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বিকেলে ছাত্রলীগ কর্মী ভেটেরিনারি অনুষদের শিক্ষার্থী রাফসান জানি রাহাত, কৃষি অনুষদের আসিফ উর রহমান ফাহিম ও এজাজ আহমেদ ইমন, মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের রাকিবুল ইসলাম, পশুপালন অনুষদের আবু হুরাইরা নুহাশসহ প্রায় ২০ জন ছাত্রলীগ কর্মী নদীর পাড়ে গিয়ে জড়ো হয়।

হঠাৎ তারা বার্গারের দোকানের মালিক তরিকুল ইসলাম আপনকে মারতে উদ্যত হয় ও দোকানে লাথি দিতে থাকে। পরে তারা দোকানের চাবি নিয়ে চলে যায়। এসময় রাহাত বলেন, ‘আমগো কথাতে এইনে সব দোকান বইবো আর আমগো কথাতেই সব দোকান উইঠা যাইব।’

ভুক্তভোগী দোকানদার তরিকুল জানান, কিছুদিন আগে শেয়ারে দোকান করতে রাহাত আমাকে টাকা দিতে চায়। তবে আমি তার সাথে শেয়ারে দোকান চালু করতে রাজি হইনি। পরে সে আমাকে জোর করে ৫০০ টাকা দিয়ে যায়। আজ নতুন দোকান চালু করলে সকালে সে দোকান বন্ধ করতে বলে। আমি দোকান বন্ধ না করে তাকে টাকা ফেরত দেই। পরে বিকেলে রাহাত লোকজন নিয়ে আমার দোকানে হট্টগোল করে জোর করে দোকানের চাবি নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে রাহাত বলেন, আমি কিছুদিন আগে তরিকুলের সাথে শেয়ারে দোকান দিতে চাই। আমি তাকে ২০ হাজার টাকা দিয়েছিলাম। সে আজ সকালে আমাকে টাকা ফেরত দিয়েছে। তার এই আচরণের কারণে আমি তাকে দোকান চালু করতে বাঁধা দেই।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সবুজ কাজী বলেন, ‘ব্যবসায় শেয়ার করা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। এর সাথে ছাত্রলীগের কোনো সম্পৃক্ততা নেই।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. তানভীর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ আমার কাছে আসেনি। অভিযোগ পেলে আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নিব।’
 

ট্যাগ: bdnewshour24 দোকান বন্ধ ছাত্রলীগ