banglanewspaper

মোহাম্মদ আবদুল্লাহ মজুমদার 

 .......................................................

কে আমাদের ভয় দেখাতে চায়?
তারা হয়তো ভুলে গেছে 
ভয়ও আমাদের ভয় পায়।

তারা জানেনা, আমরা আমাবস্যার রাতে
কতো আঁধারের টানেল পাড়ি দিয়েছি।
ভুলে গেছে তাদের ফেলে আসা রাজ্য
আমরা উদ্ধার করেছি।

এখনো আমরা ছুটি দুরন্ত গতিতে 
মহাবাঁধ ভেঙে বীর্যের বেরিয়ে পড়ার মতো।
নিমিষেই পাড়ি দিয়ে যাই 
সহস্র কোটি আলোকবর্ষ।

আমাদের ভার্জিনিটি পরীক্ষা করতে চাও?
আমাদের হুংকার পেলে 
বেহায়া হয়ে যায় লজ্জাবতী গাছের পাতা।

কতো হাস্যোকর বলো,
এখনো যারা বোমার ভয়ে রাতভর বেগুন পাহারা দেয়
তারা নাকি আমাদের ভয় দেখাবে।
আর অস্তিত্ব নগ্ন করে পালিয়ে যাবো আমরা।

বাঁচার নেশায় এখনো যারা ম্যানহোলে পড়ে
তারা আমাদের কিসের ভয় দেখাবে?
বরং তার সার্কাস দেখাতে পারে,
ক্ষণিকের জন্য দিতে পারে নাট্যমঞ্চের মজা।

আমরা কোন কালে মাথানত করিনি।
প্রতিকী মৃত্যুর পরও করবো না,
বেঁচে থাকবো অন্তহীন কালের জন্য।

আমরা কোন মহাসাগর পাড়ি দেয়ার পর
সে জাহাজগুলো পুড়িয়ে দেই।
অথৈই জলে ভাসিয়ে দেই সকল নৌ সরঞ্জাম।

আমাদের অনুভূতি প্রকাশের মাধ্যম একটিই,
কান্না-হাসির দুমুখো শব্দ অবিশ্বাস করি আমরা।

সেদিন যারা ভীত হয়ে 
লজ্জা নিবারনী বস্ত্র পরিহার করেছিল

আমরা তো সে বস্ত্র সংরক্ষণ করেছি।

সে বস্ত্র ফেরত দিতে আমরা তাদের খুঁজে বেড়াই,
কিন্তু হাস্যোকর পরিহাস
কচুবনে লুকিয়ে তারা হুংকার ছুড়ে মারে আমাদের উদ্দেশ্যে।

ট্যাগ: bdnewshour24 হাস্যোকর ভয়