banglanewspaper

দেশে বিদেশি ছবি প্রবেশের সহজ নীতিমালা ও দেশীয় ছবি নির্মাণ বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতি। এ বিষয়ে সরকার যদি আনুষ্ঠানিক উদ্যোগ না নেয় তাহলে ১২ এপ্রিল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হচ্ছে দেশের সব সিনেমা হল। আজ বুধবার এক সংবাদ সম্মেলন করে এমন সিদ্ধান্তই জানালেন প্রদর্শক সমিতির নেতারা।

প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার নওশাদ বুধবার গণমাধ্যমকে বলেন, সিনেমা হল টিকিয়ে রাখার জন্য পর্যাপ্ত কনটেন্ট (সিনেমা) নেই। দীর্ঘদিন ধরে লোকসান গুনতে গুনতে হলের মালিকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। সেজন্য ১২ এপ্রিল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য দেশের সব সিনেমা হল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এই সংবাদ সম্মেলন করেন প্রদর্শক সমিতির নেতারা। সেখানে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন প্রদর্শক সমিতির উপদেষ্টা সুদিপ্ত কুমার দাস, মিয়া আলাউদ্দিন, সভাপতি ইফতেখার নওশাদ প্রমুখ।

নব্বইয়ের দশকের শুরুতে সারা বাংলাদেশে সিনেমা হল ছিল ১৪৩৫টি। এরপর থেকে সিনেমা হলের সংখ্যা কমতে কমতে এখন দুশোর ঘরে নেমে এসেছে। গত দুই দশকে দেশের কোথাও নতুন কোনও পূর্ণাঙ্গ সিনেমা হল চালু হয়নি। হলের মালিকেরা ভবনগুলো ভেঙে ফেলে বহুতল মল গড়ে তুলছেন। তারা বলছেন, ভাল চলচ্চিত্রের অভাবে দর্শকেরা সিনেমা হলে আসা ছেড়ে দিয়েছেন। এ কারণে সিনেমা হলের ব্যবসা মন্দা।

সিনেমা হলের সঙ্গে ৫০ হাজার শ্রমিক জড়িত বেকার হয়ে আছে। প্রতিনিয়ত বাড়ছে হল ভাড়া, বিদ্যুৎ বিল। নতুন বিনিয়োগ ও মেধা সম্পন্ন নির্মাতা আসছে না। এর সমাধান কী?

যখন থেকে ছবি আমদানি করা হচ্ছে তখন থেকে প্রদর্শক সমিতিকে আশ্বাস দেয়া হচ্ছে, ভালো নির্মাতা আসছেন, দেশের চলচ্চিত্র ঘুরে দাঁড়াবে। তার উদাহরণ এখন সিনেমা হল সংখ্যা ১৭৪ আর ছবি মুক্তির সংখ্যা বছর ৩৫। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য বহু দিন প্রদর্শক সমিতি চুপ ছিল, কিন্তু আর নয়।

অনেক ধৈর্য্যের পর প্রদর্শক সমিতি সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য আগামী ১২ এপ্রিল থেকে সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখা হবে দেশের সব সিনেমা হল।


আর এই হাহাকারের মাঝেই আজ এমন ভয়ানক সিদ্ধান্ত নিলেন প্রদর্শক সমিতির নেতারা। এই ঘোষণার ফলে একটি দেশের সংস্কৃতির সবচেয়ে বড় মাধ্যমটি ধ্বংসের চূড়ান্ত অবস্থায় এসে পড়েছে। দেখা যায় পরবর্তীতে এই সংকট কাটিয়ে উঠতে সরকার কেমন ভূমিকা রাখে।  
 

ট্যাগ: bdnewshour24 সিনেমা হল