banglanewspaper

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদে পুনর্নির্বাচনের যে দাবি ৫ টি প্যানেল করছে সেটি সম্ভব নয়। ডাকসুতে রীতি-নীতি অনুয়ায়ী সময়মত নির্বাচিত প্রতিনিধিদের শপথ অনুষ্ঠিত হবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা করা হলে তা মেনে নেয়া হবে না বলেও জানান ভিসি।

বুধবার (১৩ মার্চ) দুপুরে উপাচার্য কার্যালয় থেকে বের হবার সময় তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন। 

এসময় অধ্যাপক আখতারুজ্জামান আন্দোলনকারীদের সতর্ক করে বলেন, ‘২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচন সফল করতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাড়ে ৪শ শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীর শ্রম-সময় ও মেধার যে খরচ হয়েছে তার প্রতি অসম্মান জানাতে পারি না। তাদের শ্রমকে অসম্মান করার এখতিয়ার আমার নেই।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করতে এবং বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা হলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তা মেনে নেবে না বলে জানান অধ্যাপক আখতারুজ্জামান।

এর আগে ভিসি আখতারুজ্জামানের সঙ্গে তার কার্যালয়ে দেখা করেন ভিপি নুরুল হক নুরসহ ডাকসু নির্বাচনে অংশ নেয়া পাঁচটি প্যানেলের প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীরা। তারা পুনর্নির্বাচনের দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেন।


বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। সকাল থেকে শিক্ষার্থীরা সেখানে অবস্থান নেয়। পরে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়তে থাকে।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘এই কারচুরি নির্বাচনে যে সব শিক্ষক-কর্মকর্তা জড়িত তাদের পদত্যাগ করতে হবে এবং তাদের বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। ডাকসু নির্বাচন আদায় না করে আমরা ক্লাসে-হলে ফিরে যাবো না।’

আগামী ৩ দিনের মধ্যে নতুন নির্বাচন না দিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা-একাডেমি কার্যক্রমসহ সব অচল করে দেয়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

ট্যাগ: bdnewshour24 ভিসি