banglanewspaper

বাংলাদেশের জনপ্রিয় মডেল, অভিনেত্রী ও প্রযোজক জয়া আহসান। সাবেক স্বামী ফয়সাল আহসানের সঙ্গে তার ডিভোর্স হয়েছে আট বছর আগে। দীর্ঘ এ সময়টা একাই পথ চলছেন নায়িকা। দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বাংলাদেশ ও কলকাতার চলচ্চিত্র জগত।

অভিনয় দিয়ে দুই বাংলায়ই অর্জন করেছেন সমান জনপ্রিয়তা। দুই ইন্ডাস্ট্রি থেকেই তার হাতে উঠেছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।

কিন্তু হাতে উঠছে না শুধু মেহেদির রংটা। বয়সের ঘর ৪০ পার হলেও ভাবছেন না নতুন কোনো জীবনসঙ্গীর কথা। সম্প্রতি ভারতীয় একটি পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাৎকারেও সেকথা জানালেন জয়া। সেখানে নায়িকাকে বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, আপাতত বিয়ের কোনো চিন্তা ভাবনা তার মাথায় নেই। কারণ কাজ নিয়ে এতটাই মগ্ন যে, সংসারের মায়াজালে এখনই আবদ্ধ হতে চান না।

তাহলে কি কখনও বিয়ে করবেন না জয়া আহসান? উত্তরে অভিনেত্রী বলেন, ‘পরিবার থেকে বিয়ে জন্য মাঝে মাঝেই চাপ দেয়। বিয়ে করব। যখন করব সবাইকে জানাবো। কিন্তু কেমন জীবনসঙ্গী পছন্দ জয়ার? নায়িকা বলেন, ‘অবশ্যই বিচক্ষণ, অনুভূতিশীল, সৃজনশীল ও প্রতিশ্রতিবান হতে হবে।’ তবে কি চেহারাকে বিশেষ পাত্তা দেন না জয়া। এ প্রশ্ন আপাতত তোলাই থাক। তিনি আবার কবে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন শুরু হোক সেই অপেক্ষা।

জয়ার সাবেক ও প্রথম স্বামী মডেল ফয়সাল আহাসন। বিয়ের পর ধানমন্ডিতে প্রেমের সোপান হিসেবে একটি ফাস্টফুডের দোকানও খুলেছিলেন তারা। সুখেই চলছিল তাদের সংসার। কিন্তু হঠাৎ অজানা কিছু বিষয় নিয়ে মনোমালিন্যের ঝড় বইতে শুরু করে। ধীরে ধীরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। ২০১১ সালে স্বামী ফয়সাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তাকে ডিভোর্স লেটার পাঠান জয়া। এরপর থেকেই ‘একলা চলো রে’ নীতিতে নায়িকা।

জয়া সম্প্রতি শেষ করেছেন ‘বিনি সুতোয়’ ছবির কাজ। ছবিটি সম্পূর্ণই কলকাতার। এতে তার বিপরীতে নায়ক ঋত্বিক চক্রবর্তী। ছবিটির শুধু ডাবিং বাকি। এর আগে কলকাতার ‘রাজকাহিনী’, ‘বিসর্জন’ ও এক যে ছিল রাজা’ ছবিগুলোতে তিনি কাজ করেছেন। সমান তালে কাজ করছেন দেশের ছবিতেও। গত বছর আবার ‘দেবী’ ছবিটি প্রযোজনা করে প্রযোজক হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছেন। ওই ছবিতে রানু চরিত্রে তিনি অভিনয়ও করেন।

ট্যাগ: bdnewshour24 স্বামী চান জয়া আহসান