banglanewspaper

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় ঝোপঝাড় থেকে ওয়াকিব শিকদার নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি আলফাডাঙ্গা সদরের নাজমা মেডিকেয়ার ক্লিনিকের ম্যানেজার ছিলেন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে উপজেলার মিঠাপুর চরপাড়া বারাশিয়া নদী সংলগ্ন একটি কাঠাল বাগানের মধ্যে একটি ঝোপ থেকে ওয়াকিবের লাশ উদ্ধার করা  হয়।নিহত ওয়াকিব শিকদার পার্শ্ববর্তী বোয়ালমারী উপজেলার দেউলি গ্রামের জলিল শিকদারের ছেলে।

আটক ব্যক্তিরা হলেন, একই গ্রামের বিল্লাল হোসেন, ইমোন শেখ ও লাকিব উদ্দীন।

নাজমা মেডিকেয়ারের পরিচালক হারুনার রশিদের সহযোগিতায় সন্দেহভাজন বিল্লাল হোসেন নামে একজনকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আলফাডাঙ্গা থানা পুলিশ আটক করে। পরে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বিল্লাল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানায়, গত ১৯ মার্চ মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১০ টার দিকে ওয়াকিবকে কিডন্যাপের উদ্দেশ্যে তার বাড়ি থেকে ডেকে নেয়া হয়।

তারপর তাদের মধ্যে একজন অজ্ঞান করার উদ্দেশ্যে ওয়াকিবকে পেছন থেকে মাথায় আঘাত করলে ওয়াকিব ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে শুক্রবার রাত ২টায় ওয়াকিবের মরাদেহ উদ্ধার করা হয়। ইমোন শেখ ও লাকিব উদ্দীন নামে আরও দুজনকে আটক করা হয়।

আলফাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম জানান, ‘এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 বাড়ি ক্লিনিক ম্যানেজার হত্যা