banglanewspaper

আইপিএলে ভাগ্য পরিবর্তন হয়েছে অনেক খেলোয়াড়ের। তবে অনেকেই স্মৃতির গহ্বরে হারিয়েছেন। তেমনই একজন কামরান খান। ২০০৯ সালে রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে আইপিএলে খেলেন তিনি। প্রথম দর্শনেই সাড়া ফেলে দেন তিনি। নিয়মিত ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার বেগে বল ছুড়তে পারতেন।

গতির ঝড় তুলেই নজরে এসেছিলেন বাঁহাতি পেসার। হারিয়ে গেছেন ২২ গজ থেকে। তার মতো প্রতিভাবান ক্রিকেটার কৃষিকাজ করছেন, খেলছেন না-এটা হতাশাজনক বলে জানিয়েছেন ওয়ার্ন। কামরানের ছবি টুইটারে পোস্ট দুঃখ প্রকাশ করেন সাবেক অজি তারকা।

২০০৯ সালে স্কাউট ক্যাম্প থেকে কামরান খানকে আবিষ্কার করেন রাজস্থানের টিম ডিরেক্টর ড্যারেন বেরি। তিনি ছিলেন, ভারতের উত্তর প্রদেশের ছেলে। দুই মৌসুম দলটির হয়ে খেলেন এ তরুণ পেসার।

২০১১ আসরে পুনে ওয়ারিয়র্সে যোগ দেন কামরান। দলটির হয়ে খেলার সময় বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সমস্যায় পড়েন তিনি। চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষের ম্যাচে তার বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন আম্পায়ার রুডি কোয়েরৎজেন ও গ্যারি বাক্সটার।

পরে ভিডিও ফুটেজ পর্যবেক্ষণ করে আইপিএল টেকনিক্যাল কমিটি। এর গ্যাঁড়াকলে পড়ে দল থেকে বাদ পড়েন কামরান। কিছুদিন স্থানীয় ক্লাবের হয়ে খেলেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ক্রিকেট ছেড়ে ২৮ বছরের গতিদানব বেছে নেন কৃষি পেশা।

ট্যাগ: bdnewshour24 আইপিএল খেলোয়াড় কৃষক