banglanewspaper

মোঃ নাসির উদ্দিন, নকলা (শেরপুর): শেরপুরের চন্দ্রকোনা রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই দিনব্যাপী শতবর্ষ পূর্তি ও পুনর্মিলনী উৎসব শুরু হয়েছে।

৩০ মার্চ শনিবার বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা ও পায়রা উত্তোলনের মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন করেন শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনের সাংসদ মতিয়া চৌধুরী। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শতবর্ষ উদ্যাপন পরিষদের আহবায়ক বিদ্যালয়ের সাবেক কৃতি শিক্ষার্থী মো. আকরাম হোসাইন।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, আগামী ১ এপ্রিল থেকে অনুষ্ঠেয় উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে সরকার সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। গোয়েন্দা তৎপরতা ও নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। কেউ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁসের চেষ্টা করলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি প্রশ্নপত্র ফাঁস ও নকলসহ সকল প্রকার অনৈতিক কাজ করা থেকে বিরত থাকার জন্য শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি দীপু মনি ও সাংসদ মতিয়া চৌধুরীসহ আরো বক্তব্য দেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য মোফাখ্খার ইসলাম, চন্দ্রকোনা কলেজের অধ্যক্ষ ড. মো. রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জিন্নাহ, চন্দ্রকোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোখলেছুর রহমান, চন্দ্রকোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাজু সাইদ সিদ্দিকী, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান তাসলিমা বেগম, ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. গাজী হাসান কামাল, শেরপুরের জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন, নকলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ১৯১৯ সালে শেরপুরের তৎকালিন জমিদার প্রয়াত গোপাল দাস চৌধুরী তাঁর মা রাজলক্ষ্মীর নামে নকলার চন্দ্রকোনায় রাজলক্ষ্মী উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। এটি উপজেলার প্রথম উচ্চ বিদ্যালয়।

ট্যাগ: bdnewshour24 শেরপুর শিক্ষামন্ত্রী