banglanewspaper

দিনের পর দিন গোসল করেন না স্বামী। দাঁড়িও কামান না ঠিক মতো। আর একারণে দুর্গন্ধে বাড়িতে জীবনযাপন মুশকিল হয়ে পড়েছে স্ত্রীর। ফলে বিচ্ছেদ চেয়ে স্ত্রী শরণাপন্ন আদালতের। সাফ বলে দিয়েছেন- তার পক্ষে সংসার করা সম্ভব নয়। সুতরাং বিচ্ছেদই তার কাম্য।

ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভুপালে এমন ঘটনাটি ঘটেছে। ডিভোর্স চাওয়ার কারণ হিসেবে ওই নারী আদালতে অভিযোগ করেন, সপ্তাহে একদিন নামকাওয়াস্তে গোসল করেন তার স্বামী। ভালো করে দাঁড়ি কামান না। দুর্গন্ধে বাড়িতে টিকে থাকা মুশকিল।

স্ত্রীর এমন অভিযোগ শুনে বিচারক যতবারই তাকে সিদ্ধান্ত দিতে সময় নিতে বলেছেন, ততবারই ওই নারী একই কথা উচ্চারণ করেছেন আদালতে। বলেছেন এই স্বামীর সঙ্গে সংসার করা মোটেই সম্ভব নয়; ডিভোর্স চাই।

সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, ২০১৮ সালে বিয়ে হয়েছিল এই দম্পতির। পারিবারিকভাবে সিন্ধি সম্প্রদায়ের ওই তরুণের সঙ্গে ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের তরুণীর  বিয়ে হয়।

প্রথম দিকে বেশ ভালোই চলছিল সংসার। কিন্তু এরপরই প্রকাশ পেতে থাকে স্বামীর অপরিচ্ছন্ন স্বভাবের বিষয়টি। গত ৬ মাস ধরে স্বামীকে অনেক বোঝানোর পরও তিনি স্ত্রীর কথা কানে দেননি। অবশেষে বিচ্ছেদের আর্জি জানিয়ে পারিবারিক আদালতে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা ঠুকে দেন স্ত্রী।

তবে এখনই বিচ্ছেদ নয়, আপাতত দুইজনকে ছয় মাসের জন্য আলাদা থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক আরএন চাঁদ। এ সময়ের মধ্যে তাদের দুজনেরই কাউন্সেলিং চলবে।

কোর্ট কাউন্সিলর সাহিল অবস্তী জানান, ঘটনাটি আদালতে গড়ানোয় অনেকটাই অনুতপ্ত অভিযুক্ত স্বামী। এখন থেকে স্ত্রীর কথামতো চলবেন বলেও জানিয়েছেন। তবে স্বামীর ওপর ত্যক্তবিরক্ত স্ত্রী তার সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছেন।

এর আগে ২০১৬ সালেও ভারতের উত্তরপ্রদেশের মিরাটে স্বামী দাঁড়ি কামায় না বলে আত্মহত্যা করার সিদ্ধান্ত নেন এক স্ত্রী। তবে শেষ পর্যন্ত রক্ষা পান তিনি।

ট্যাগ: bdnewshour24 স্বামী অপরিচ্ছন্ন দুর্গন্ধ বিচ্ছেদ চান স্ত্রী