banglanewspaper

ঈশাত জামান মুন্না, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: বর্ণাঢ্য আয়োজন আর নানা রঙের মাতোয়ারার মধ্য দিয়ে সীমান্তবর্তী জেলা শহর লালমনিরহাটে উদযাপন হলো বাংলা নব্বর্ষ ১৪২৬। বছরের প্রথম সকালে উদিত সূর্যের আলো চারদিক ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথেই ঢাক-ঢোলের আওয়াজে প্রকম্পিত হয়ে উঠে শহরের আশপাশ।

ছড়িয়ে পড়ে পহেলা বৈশাখের ডাকে সুখ-শান্তি-সমৃদ্ধির বার্তায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নেবার আহ্বান।বৈশাখের সকাল থেকেই লালমনিরহাট সদর উপজেলাসহ জেলার পাঁচ উপজেলায় বাঙালী সংস্কৃতির প্রাণের উৎসব বাঙলা বর্ষবরণে মেতে উঠে ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে ছোট-বড় সব বয়সী মানুষ।

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসন ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়েের যৌথ আয়োজনে জেলা নগরীতে বের হয় বর্ণিল শোভাযাত্রা। এই শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক শফিউল আরিফ। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড, মতিয়ার রহমান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার এসএম রশিদুল হক পিপিএম। এদিকে  পৌর কর্পোরেশনের আয়োজনে শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন পৌর মেয়ার রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু।

এছাড়া লালমনিরহাট সরকারী কলেজ,ফ্যাকল পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ,বর্ডারগার্ড স্কুল এন্ড কলেজসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন পৃথক পৃথক র‌্যালী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। জেলা শহর থেকে একটু দূরের গ্রামগঞ্জে নাগর দোলা, পুতুল নাচ, লাঠি খেলা, পাতা খেলা, হা-ডু-ডু, ঘুড়ি উৎসবসহ বৈচিত্রময় সব আয়োজন করা হয়। আবার কোথাও বসেছে বৈশাখী মেলা।

কেউ কেউ রঙ তুলির আলপনায় বৈশাখের শুভেচ্ছা বিলিয়ে দিচ্ছে গ্রামের মেঠোপথ থেকে শহুরের দিকে। সবমিলে যেন উত্তরের সংস্কৃতি সমৃদ্ধ প্রাচীনতম এই সীমান্তবর্তী জেলা বৈশাখের রঙে রঙিন হয়ে উঠেছে।ভিড় বেড়েছে বিনোদন স্পটগুলোতে।

শেখ রাসেল শিশু বিনোদন পার্কসহ আশপাশের উপজেলার ছোট বড় বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে চলছে বৈশাখের উৎসব।এদিকে জেলা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলো সিসি ক্যামেরার আওতায় নেয়াসহ বেশ কয়েকটি পয়েন্ট ঘিরে বাড়ানো পুলিশি টহল। বলা যায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে ছিল পুরো জেলা।

ট্যাগ: bdnewshour24 লালমনিরহাট