banglanewspaper

রাজধানীর মালিবাগের কাঁচাবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দুই শতাধিক দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এই দোকান দিয়ে যাদের রুটি-রুজি হয়তো তাদের অনেককেই পথে বসতে হতে পারে। এই অগ্নিকাণ্ডের পর আবার নিজেকে গুছিয়ে উঠতে পারবেন কিনা, এসব ভেবেই কান্নায় ভেঙে পড়ছেন অনেক দোকানি।

আজ বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টায় আগুনের সূত্রপাত ঘটে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ১৪টি ইউনিটের প্রায় এক ঘণ্টা চেষ্টায় এ আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, এই কাঁচাবাজারে প্রায় আড়াই শতাধিক দোকান রয়েছে। এর প্রায় সব দোকানেই আগুনের স্পর্শ লেগেছে। ফলে অধিকাংশ দোকানের মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। দোকানের পুড়ে যাওয়া মালামালের দৃশ্য দেখে ব্যবসায়ীরা কান্নায় ভেঙে পড়ছেন। দোকানিরা বলছেন, বৈদ্যুতিক শটসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, বাজারের পশ্চিম পাশের মুদির দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত। সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসকে ফোনে জানানো হলে, দ্রুত গতিতে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে।

এ বিষয়ে ফল বিক্রেতা আব্দুল মালেক বলেন, ‘আমার দোকানের পাশেই মুদির দোকান ছিল। এখান থেকে মূলত আগুনের সূত্রপাত। মুহূর্তে আগুন চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে। আমরা যারা দোকানদার। সবাই বাসায় ঘুমাচ্ছিলাম। এসে দেখি সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।’

সবজির দোকানি মো.কামাল বলেন, ‘আমার দোকান পুড়ে ছাই গয়ে গেছে। কাল নতুন মাল দোকানে উঠিয়েছিলাম। কিন্তু আজ সব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আমি শেষ আমি এই ক্ষতি কীভাবে সামাল দিব।’

এর আগে বুধবার (১৭ এপ্রিল) রাত ১২টা ৫ মিনিটে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কাজলার এলাকায় একটি আবাসিক ভবনের নিচ তলায় আগুনের ঘটনা ঘটেছে। তবে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের নয়টি ইউনিটের দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে সেখানে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ট্যাগ: bdnewshour24 মালিবাগ