banglanewspaper

অভিনেত্রী নওশীনের সঙ্গে সাবেক স্বামী পাইলট পারভেজ সানজারির সঙ্গে ঘনিষ্ট ও অন্তরঙ্গ ছবি পাওয়ার অভিযোগ করেছেন পপ গানের শিল্পী মিলা ইসলাম।

মিলা অভিযোগ করেন, স্বামী পারভেজ সানজারির সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন নওশীন। ফোনে বিভিন্ন সেক্সুয়ার আলাপও করতো নওশিন ও সানজারি। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়ে তার পুরনো সংসারে।

২৪ এপ্রিল বুধবার বিকালে রাজধানীর বেইলি রোডের একটি রেস্টুরেন্টে সাংবাদিকদের সামনে এবিষয়ে মুখ খোলেন মিলা।

নওশীনের সঙ্গে গত জুনে মোবাইল ফোনে বিবাদের একটি রেকর্ড শোনান মিলা। তখনো ডিভোর্স হয়নি বলে জানান তিনি। রেকর্ডে শোনা যায়, বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে পরিচয় থাকার কথা স্বীকার করেছেন নওশীন।

মিলা বলেন, আমার স্বামীর সঙ্গে নওশীনের সম্পর্ক ছিলো। তাদের ঘনিষ্ঠ ছবি হাতে পেয়ে নওশীনের স্বামী হিল্লোলকে জানানোর পরও কোনো সমাধান হয়নি। উল্টো ডিএমপি’র সাইবার ক্রাইমে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন নওশীন।

সপরিবারে  সংবাদ সম্মেলনে মিলা

রে সাইবার ক্রাইম বিভাগের একজন এডিসি আমাকে বলেন, এসব নিয়ে প্রকাশ্যে কথা না বলাই ভালো। আমার প্রশ্ন হলো, নওশীন শোবিজের মেয়ে হয়ে শোবিজেরই আরেকজনের স্বামীকে নিয়ে এমন করলো, আমরা শোবিজের মেয়েরা তাহলে কোথায় যাবো?

সংবাদকর্মীদের সামনে সাবেক স্বামী বৈমানিক পারভেজ সানজারি ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরেন মিলা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তিনি এর বিচার চেয়েছেন।

মিলা বলেন, ‘আমাকে প্রায়ই তারা (সাবেক স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা) বাসা থেকে বের করে দিতো।’ এই কথা বলার পরই অঝোরে কাঁদতে শুরু করেন মিলা। কিছুক্ষণ পর জনপ্রিয় এই গায়িকা বলেন, ‘দুই বছর অপেক্ষা করেছি। ভেবেছি এর প্রতিকার পাবো। তাই প্রধানমন্ত্রীর শরণাপন্ন হইনি। কিন্তু আর পারছি না। তাই আমাকে যে অমানুষিক নির্যাতন করা হলো, প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার বিচার চাই। শুধু শিল্পী নয়, ২০১১ সাল থেকে আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সক্রিয় সদস্য। একজন কর্মী হিসেবেও এ দাবি আমার।’

মিলার সাবেক স্বামী সানজারি ও মিলা। ছবি: সংগৃহীত

২০১৭ সালের মে মাসে পারিবারিকভাবে বৈমানিক পারভেজ সানজারির সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মিলা ইসলাম। বিয়ের পর গানে হয়ে পড়েন অনিয়মিত। জড়িয়ে যান সংসার জীবনে। নারী নির্যাতন-যৌতুকের অভিযোগে এনে স্বামী সানজারির বিরুদ্ধে মামলাও করেন তিনি। সবশেষে সংসার জীবনের ইতি টানেন পপ গানের এই তারাকা।

 

ট্যাগ: bdnewshour24 নওশীন মিলা