banglanewspaper

সম্প্রতি ‘হিউম্যান অব বোম্বে’-কে দেয়া সাক্ষাৎকারে নিজের ব্যক্তিগত জীবনের নানা অভিজ্ঞতা ও সাইফ আলি খানের সঙ্গে তার প্রেমের কথা শেয়ার করেন। জানালেন, বোর্ডিং স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে দেখেন দিদি কারিশমা কাপুর সবে অভিনয় জগতে পা রেখেছেন।

শাহরুখ খানের বিপরীতে ‘দিল তো পাগল হ্যায়’ ছবিতে কারিশমার অভিনয় দেখে এই দুনিয়ায় আসার কথা মনে হয় কারিনার। যেদিন সত্যিই পা রাখলেন বলিউডে, সেদিন দিদি কারিশমাই তাকে অভিনয় জগত চিনতে সাহায্য করেছিলেন। মাথা উঁচু করে কীভাবে ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করতে হয়, তাও শিখিয়েছিলেন।

অকপট কারিনা জানান, ‘শুরুটা ঠিক স্বপ্নের মতোই ছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই একদিন দেখলাম হাতে কোনো কাজ নেই। তখন মনে হয়েছিল, আমার কেরিয়ারটাই বোধহয় শেষ হয়ে গেল। আর কিছু হবে না। তখন আমাকে জিরো ফিগারের হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।’

নায়িকা বলেন, ‘ঠিক যখন মনে হয়েছিল সামনে শুধুই অন্ধকার, তখনই আমার জীবনে সাইফ আসে। আগেও ওর সঙ্গে আমার দেখা হয়েছে, কিন্তু ‘তাসান’ ছবির শুটিং করার সময়ে আমাদের সম্পর্ক অন্য মোড় নেয়। ও এতটাই চার্মিং ছিল যে, আমি প্রেমে পড়ে গেলাম।’

‘তাসান’-এর শুটিংয়ের সময়ে তারা নাকি একান্তে সময় কাটানোর জন্যে মাঝেমধ্যেই বাইক নিয়ে বেরিয়ে পড়তেন। কারিনা জানান, সাইফ বরাবরই ‘প্রাইভেট’। কাজের বাইরে একেবারেই ফিল্মি নয় সে। তখন আমরা ডেট করছি। একদিন সাইফ বলল, দেখো আমার বয়স ২৫ নয় যে প্রতিদিন তোমাকে কাজের পর বাড়িতে ড্রপ করতে যাবো।’

‘একদিন আমার মাকে এসে সরাসরি বলল, আমার সঙ্গে সারা জীবন কাটাতে চায়। সেই কারণেই লিভ ইন করতে চায়। মারও কোনও আপত্তি ছিল না। ’

সাইফে মুগ্ধ কারিনা বলেন, তাকে জীবনে বিভিন্ন জিনিস ব্যালেন্স করতে সাইফ শিখিয়েছেন। তার জীবনের সব দুঃখ-কষ্ট আপন করে নিয়ে তাকে নতুন জীবন দিয়েছেন বলিউডের ছোটে নবাব।

ট্যাগ: bdnewshour24 সাইফ কারিনা