banglanewspaper

খরতাপে পুড়ছে দেশ। বইছে তাপপ্রবাহ। দুর্বল মৌসুমি বায়ুপ্রবাহ এবং বাতাসে আর্দ্রতার মাত্রা বেশি থাকায় সারাদেশে তীব্র গরমে অতিষ্ঠ মানুষ। বাড়ছে তাপজনিত রোগব্যাধি। তাপপ্রবাহে শুধু মানুষ নয়, পশু-পাখিরও বেহাল দশা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, সারাদেশের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এই তাপপ্রবাহ আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকতে পারে। তবে দু-একদিনের মধ্যে বৃষ্টি হতে পারে। বৃষ্টি হলে গরমের তেজ কমবে। এ ছাড়া সাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হয়ে তা ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল খুলনায় ৩৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় রাজধানী ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকা বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ছিল মাদারীপুর জেলায় ৩৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ সময় অন্যান্য বিভাগের মধ্যে ময়মনসিংহে ৩৭ দশমিক ২, রাঙামাটিতে ৩৮ দশমিক ৪, সিলেটে ৩৮ দশমিক ৩, পাবনার ঈশ্বরদীতে ৩৮ দশমিক ৫, রংপুর বিভাগের মধ্যে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৩৬ দশমিক ৭ এবং বরিশালে ৩৮ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামছুদ্দীন আহমেদ জানান, তাপমাত্রা বৃদ্ধি আরও কয়েক দিন অব্যাহত থাকবে। এ ছাড়া সাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। নিম্নচাপ শক্তিশালী হয়ে উপকূলের দিকে এগিয়ে এলে তা ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।

অপরদিকে, আবহাওয়াবিদ নাজমুল হক বলেন, আগামী ২৪ ঘণ্টা এমন তাপপ্রবাহ বিরাজ করবে। আপাতত তাপমাত্রা আর বাড়ার সম্ভাবনা নেই।

ট্যাগ: bdnewshour24 তাপপ্রবাহ