banglanewspaper

কিডনির পাথরের সমস্যায় অনেকেই ভোগেন। প্রস্রাবে বিভিন্ন মাত্রায় লবণের আধিক্য, গরম আবহাওয়া, মূত্রথলিতে দীর্ঘসময় প্রস্রাব জমে থাকা, প্রস্রাবের রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা, কিডনিতে প্রদাহ  ইত্যাদি কিডনিতে পাথর হওয়ার কিছু কারণ।

পিঠে ব্যথা, জ্বর, বমি বা বমি বমি ভাব কিডনিতে পাথর হওয়ার লক্ষণ। এ ছাড়া কিডনির পাথরের আরো কিছু লক্ষণ রয়েছে।

কিডনিতে পাথর হওয়ার কিছু লক্ষণের বিষয়ে জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট হেলথ লাইন।

১. পিঠে, পেটে অথবা পাশে ব্যথা হওয়া

কিডনির পাথরের ব্যথাকে রেনাল কলিকও বলা হয়। এই ব্যথা সাধারণত হঠাৎ করে শুরু হয়। পাথর যখন এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নড়াচড়া করে, তখন ব্যথার জায়গাও পাল্টে যায়।

এই ব্যথাকে অনেকে প্রসবের ব্যথার সঙ্গে তুলনা করেন। সাধারণত পিঠে, পেটে অথবা পাশে এই ব্যথা হয়।

২. প্রস্রাবের সময় জ্বালাপোড়া বা ব্যথা হয়

কিডনিতে পাথর হলে প্রস্রাবের সময় জ্বালাপোড়া বা ব্যথা অনুভূত হয়। তবে মূত্রতন্ত্রের সংক্রমণের বেলায়ও এ ধরনের লক্ষণ প্রকাশ পায়। তাই এ ধরনের লক্ষণ দেখা গেলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রোগ নির্ণয় করুন।

৩. প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত যাওয়া

মূত্রতন্ত্রে পাথর হওয়ার একটি অন্যতম লক্ষণ হলো প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত যাওয়া। এই  লক্ষণকে হেমাচুরিয়াও বলা হয়। এই রক্তের রং লাল, গোলাপি বা বাদামি ধরনের হতে পারে। এই ধরনের লক্ষণ দেখা গেলেও চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৪. প্রস্রাবে দুর্গন্ধ

প্রস্রাবে দুর্গন্ধ হওয়া কিডনির পাথর বা  মূত্রতন্ত্রের সংক্রমণের লক্ষণ।  এমন হলে বিষয়টিকে গুরুত্ব দিন।

৫. জ্বর, বমি ও বমি ভাব

কিডনিতে পাথর হলে বা কিডনির কোনো সংক্রমণ হলে জ্বর আসতে পারে। তবে কিডনির পাথর ছাড়াও শরীরের অন্যান্য সংক্রমণে জ্বর আসতে পারে। তাই জ্বর, পাশাপাশি পিঠে বা পাশে ব্যথা হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ট্যাগ: bdnewshour24 কিডনি