banglanewspaper

আস্ত হলুদে হলদে রঙ আনতে মেশানো হচ্ছিলো কাপড়ের রঙ। সেগুলো মেশিনে ভাঙিয়ে আবার ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হচ্ছিল। বৃহস্পতিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অভিযানে গিয়ে এ চিত্র দেখতে পায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

নোংরা পরিবেশ ও ভেজাল পণ্য বিক্রির অভিযোগে পাঁচটি হলুদের গুদাম সিলগালা ও একটি গুদাম মালিককে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানে কারওয়ান বাজারের দুটি রেস্টুরেন্টে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও বাসি খাবার বিক্রির অপরাধে চার লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম জানান, ‘অভিযানে আমি যখন হলুদে হাত দিয়েছি তখন দেখি কিছু রঙ আমার হাতে লেগে আছে। পরীক্ষা করে দেখা গেছে এটা হলুদের প্রাকৃতিক রঙ নয়। ক্ষতিকর ইন্ডাস্ট্রিয়াল ক্যামিকেল রঙ। যা মানব শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর। রঙ মেশানো হলুদের গুদাম মেসার্স করিম এন্টারপ্রাইজের মালিককে খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায়নি। গুদামটি সিলগালা করে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আরও চারটি গুদামে নষ্ট হলুদ ও মরিচ রাখার দায়ে সিলগালা করা হয়।’

‘স্বপনীল রেস্তোরাঁ-২ ও জনপ্রিয় খাবারের হোটেলের রান্না ঘর অতন্ত নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। চারিদিকে ময়লা আবর্জনা ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিল। ফ্রিজগুলোতে বেশ কিছু খাবার রাখার ছিল, যা নষ্ট আর ভিতরে পচাবাসী খাবারে পরিপূর্ণ। হোটেল দুইটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ও সাজানো-গোছানো হলেও অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ানো হচ্ছিলো। এসব অপরাধে প্রতিষ্ঠান দুটিকে দুই লাখ টাকা করে চার লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।’

ট্যাগ: bdnewshour24 কারওয়ান বাজার