banglanewspaper

এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে সমকামী বিয়ের বৈধতা দিয়েছে তাইওয়ান। শুক্রবার এক ভোটের পরই এ বিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া হয়। এর আগে ২০১৭ সালে এক রায়ে সমলিঙ্গের বিয়ের পক্ষে অবস্থান নিয়েছিল দেশটির সাংবিধানিক আদালত। সে সময় এ সংক্রান্ত এক রায়ে বলা হয়েছে, সমলিঙ্গের লোকজনের বৈধভাবে বিয়ের অধিকার আছে।

এ সংক্রান্ত আইনে পরিবর্তন আনতে পার্লামেন্টকে দুই বছরের সময় বেধে দেয়া হয়। আগামী ২৪ মে সুপ্রিম কোর্টের ওই সময়সীমা শেষ হবে। তার আগেই শুক্রবার তাইওয়ানের পার্লামেন্ট সমলিঙ্গের বিয়ের অনুমতি দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করল।

তাইওয়ানের রাজধানী তাইপের সংসদ ভবনের সামনে হাজার হাজার সমকামী এবং মানবাধিকার কর্মীকে জড়ো হতে দেখা গেছে।

সমকামী বিয়ের অনুমোদন দিতে পার্লামেন্টে তিনটি আলাদা বিল নিয়ে বিতর্কে করেন আইনপ্রণেতারা। তিনটি খসড়া বিলের বিষয়ে আইনসভায় ভোট হয়েছে। এর মধ্যে মাত্র একটিতেই বিবাহ শব্দটির ব্যবহার করা হয়েছে এবং আলাদা ভাবে সমকামী বিয়েকে বৈধতা দেওয়া হয়েছে।

সংখ্যাগরিষ্ঠ ডেমোক্রেটিক প্রোগ্রেসিভ পার্টির আইনপ্রণেতাদের নেতৃত্বে শুক্রবারের ওই বিলের পক্ষে ভোট পড়েছে ৬৬ এবং বিপক্ষে ২৭। এটি প্রেসিডেন্ট সাই ইং ওয়েনের ক্যাবিনেটে পেশ করা হবে। তিনি অনুমোদন দিলে এটি আইনে পরিণত হবে।

অপরদিকে উপস্থাপিত বাকি দু'টি বিল সমকামী বিরোধী গোষ্ঠীর পেশ করা। সেখানে স্বাভাবিক ভাবে বিয়ে কথাটিরই ব্যবহার নেই। 'সমকামী মিলন' কিংবা 'সমকামী পরিবার'-এর মতো শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 সমকামী তাইওয়ান