banglanewspaper

দীর্ঘদিনের চিকিৎসা শেষে প্রাথমিকভাবে আজ থেকে নিজের মন্ত্রণালয়ে কাজ শুরু করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সুস্থ হয়ে কাজে ফিরে আসাকে জীবনের ‘দ্বিতীয় ইনিংস’ বলে উল্লেখ করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। 

আজ রোববার সকালে সচিবালয়ে নিজের দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সংক্ষিপ্ত এই আলাপে তিনি ঈদকে ঘিরে নিজেদের প্রস্তুতির কথাও জানান।

গত ৩ মার্চ সকালে ওবায়দুল কাদের বুকে প্রচণ্ড ব্যথা নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি হন। এনজিওগ্রাম করার পর তাঁর হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। ভারতের বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী শেঠির পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য ৪ মার্চ ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুর নেওয়া হয়।

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে বাইপাস সার্জারির পর তিনি ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে ওঠেন। ৫ এপ্রিল হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পান তিনি। হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে তিনি সিঙ্গাপুরেই একটি ভাড়া বাসায় ওঠেন।

সিঙ্গাপুরে দুই মাস ১০ দিন চিকিৎসা শেষে গত বুধবার দেশে ফিরেন ওবায়দুল কাদের। বিমান থেকে নেমেই তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি দেশবাসীর কাছে দোয়া চান।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সেতুমন্ত্রী। এ সময় তিনি নিজের শারীরিক অবস্থার কথা জানিয়ে বলেন, ‘মানসিকভাবে আমি সবল আছি। আরো কিছুদিন ধীরেসুস্থে কাজ করতে হবে। আশা করছি, দেড় মাস পর পুরোপুরিভাবে কাজে মনোযোগ দিতে পারব।’

আগামীকাল সোমবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যাবেন জানিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করলাম। যানজটমুক্ত দেশ ও নগর গড়া এখন আমার মূল কাজ হবে। নতুন জীবন পেয়ে সরকারে ও দলে সক্রিয় হতে পেরে ভালো লাগছে।’

এবারের ঈদে সড়কে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি হবে না বলেও মন্তব্য করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। তিনি আরো বলেন, ‘এ জন্য আমার টিম কাজ করছে।’

আওয়ামী লীগের আগামী জাতীয় সম্মেলন নির্ধারিত সময়েই হবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

ট্যাগ: bdnewshour24 কাদের