banglanewspaper

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় দুর্ঘটনাকবলিত উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনের ১৭টি বগির মধ্যে খালে পড়া দুটি ও লাইনচ্যুত হওয়া তিনটি বগি উদ্ধারে কাজ চলছে।

গতকাল রাতের ভয়াবহ ওই দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ট্রেন দুর্ঘটনার পর ঢাকার সঙ্গে সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। রবিবার রাত ১২টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এরপর সাতজনের লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি ইউনিট।

তাদের সঙ্গে স্থানীয় জনতাও উদ্ধারকাজে অংশ নেয়। আহত হন দুই শতাধিক যাত্রী। দুর্ঘটনার ফলে সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দুর্ঘটনার পর ট্রেনটির ১৭টি বগির মধ্যে সোমবার সকাল সাড়ে ছয়টায় পাঁচটি বগি উদ্ধার করে কুলাউড়া স্টেশনে আনা হয়। এর আগে রাতেই উপবনের সামনের সাতটি বগি যাত্রীদের নিয়ে ঢাকা পৌঁছায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঢাকাগামী উপবন এক্সপ্রেস ট্রেনটির এক্সট্রা ৩, ড, ঢ,ণ ও ত বগি লাইনচ্যুত রয়েছে। বগিগুলো উদ্ধারে কাজ করছে রেলওয়ের প্রকৌশল ও ট্রাফিক বিভাগ। বাংলাদেশ রেলওয়ের সিলেট জোনের ট্রাফিক ইনচার্জ নুরুল ইসলাম বলেন, দুর্ঘটনার পর রাতেই সাতটি বগিকে ঢাকায় পাঠানো হয়। পরে সকালে উদ্ধারকারী একটি ট্রেন গিয়ে আরও পাঁচটি বগি উদ্ধার করে কুলাউড়া স্টেশনে নিয়ে যায়।

এছাড়া দুর্ঘটনায় ট্রেনটির মূল পাঁচটি বগির মধ্যে দুটি বগি লাইনচ্যুত হয়ে খালের মধ্যে ছিটকে পড়েছে। আর তিনটি বগি লাইনচ্যুত হয়ে রেললাইন বেঁকে গেছে। সেগুলোকে উদ্ধার করতে সময় লাগবে বলে জানান। এদিকে বগি উদ্ধারের পর রেললাইন স্বাভাবিক করতে কত সময় লাগবে তা কেউ বলতে পারছে না।

এদিকে ভয়াবহ এই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত বেশ কয়েকজনকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 খাল বগি উদ্ধার রেল বন্ধ