banglanewspaper

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জাতীয় সংসদে বলেছেন, ‘জামিনে মুক্তি পাওয়া জঙ্গিদের নজরদারিতে রাখা হয়েছে। সঙ্গে সাজাপ্রাপ্ত ও আটক জঙ্গিদের ক্ষেত্রে রয়েছে নিবিড় নজরদারি। জঙ্গিবাদ নির্মূলে সরকার জিরো টলারেন্স নীতিতে রয়েছে। এরই আলোকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কার্যক্রম পরিচালনা করছে।’ গতকাল বিকালে জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জঙ্গি দমনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অনেক সফল অভিযান করেছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনো ধরনের জঙ্গি সংক্রান্ত বিষয়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলো সদা তৎপর রয়েছে। পাশাপাশি সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে প্রচলিত আইন অনুযায়ী জঙ্গিদের গ্রেপ্তার করে বিচারের জন্য আদালতে সোপর্দ করার কার্যক্রমও অব্যাহত আছে। জঙ্গি হামলা প্রতিরোধে কার্যকরী ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি জামিনে মুক্তিপ্রাপ্ত, সাজাপ্রাপ্ত ও আটক জঙ্গিদের নিবিড় নজরদারির ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

মন্ত্রী জানান, ভারত-মিয়ানমার থেকে অবৈধ মাদক দেশে প্রবেশ করছে। বিশেষ করে আলোচিত মাদক ‘ইয়াবা’ আসছে মিয়ানমার থেকে। ভারত থেকে আসছে গাঁজা, ফেনসিডিল, হেরোইন ও ইনজেক্টিং ড্রাগ।

স্বরাষ্টমন্ত্রী বলেন, ‘আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ২০১৮ সালে এক লাখ ৬১ হাজার ৩২৩ জন মাদক কারবারির বিরুদ্ধে এক লাখ ১৯ হাজার ৮৭৮টি মামলা করেছে। চলতি বছরের প্রথম পাঁচ মাসে ছয় হাজার ৬৭১ জন মাদক কারবারির বিরুদ্ধে ছয় হাজার ১৫৬টি মামলা করা হয়েছে।’

চট্টগ্রাম-১১ আসনের এমপি এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বহুতল ভবনে আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের জন্য বিশেষ হেলিকপ্টার সংগ্রহের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। জাপানের কারিগরি সহায়তায় এই হেলিকপ্টার সংগ্রহ করা হবে। এছাড়া, রাশিয়ান হেলিকপ্টারস কোম্পানি থেকে Ka-32A11BC ফায়ার ফাইটিং হেলিকপ্টার কেনার বিষয়ে স্পেসিফিকেশন যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়াধীন।’

ট্যাগ: bdnewshour24 স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী