banglanewspaper

‘কাবা শরিফ’ ও ‘মাকামে ইব্রাহিম’ তৈরি করে হজের প্রশিক্ষণ দেওয়া বন্ধ করতে আইন নোটিশ পাঠানো হয়েছে একটি প্রতিষ্ঠানকে। নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার তারা প্রতিষ্ঠান থেকে এগুলো ভেঙে না ফেললে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের ‘মারুফ শারমিন স্মৃতি সংস্থা’ নামের এই প্রতিষ্ঠানকে নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সানোয়ার হোসেন সমাজদার, জুয়েল শিকদার, নজরুল ইসলাম, রবিউল হাসান তুষার, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ উল্লাহ ও মোকাদ্দেস আহমেদ।

২২ জুন নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে পবিত্র কাবা শরিফের আদলে পাঁচ শতাধিক হজযাত্রীকে কাবা শরিফ ও মাকামে ইব্রাহিম প্রতীকী তৈরি করে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছিল। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এটা নিয়ে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মধ্যে এক ধরনের অসন্তোষ দেখা দেয়। যা ধর্মের সঙ্গেও সাংঘর্ষিক বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। নোটিশে বলা হয়, আপনারা অবগত আছেন পৃথিবীতে কাবা শরিফ একটিই।

আপনাদের এই ধরনের কাজধর্মও সাপোর্ট করে না। কাবা নির্মাণের উদ্দেশ্য নিয়ে কোরআনে বর্ণনা আছে- ‘এখানে শুধু একমাত্র আমার ইবাদত হবে। এ কথা বলার উদ্দেশ্য হলো যে, মুশরিকরা এখানে যে সব মূর্তি সাজিয়ে রেখেছে এবং এখানে এসে যে তাদের ইবাদত করছে, তা পরিষ্কার অন্যায়। যেখানে একমাত্র আল্লাহর ইবাদত হওয়া উচিত ছিল, সেখানে দেব-দেবীর পূজা হচ্ছে।’

হাইকোর্টের আইনজীবী মেহেদী হাসান বলেন, ‘তারা যে কাজটি করেছে সেটা দেশের প্রচলিত আইনেও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও শাস্তিযোগ্য অপরাধের শামিল। তাদের এই ধরনের কাজ ভবিষ্যতে ফেতনা সৃষ্টি করতে পারে। তাছাড়া মুসলিম শরিয়তে প্রতীকী ও স্থাপনা তৈরিরও বিধান নেই। তাই নোটিশ দিয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পবিত্র কাবা শরিফ ও মাকামে ইব্রাহীমের প্রতীকীসহ সবধরনের স্থাপনা সম্পূর্ণরূপে ভেঙে ফেলতে বলা হয়েছে। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

ট্যাগ: bdnewshour24 প্রতীকী ‘কাবা’