banglanewspaper

নীলফামারী: নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর (১৫) বাল্যবিয়ের আয়োজন চলছিল। এসময় সেখানে সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পরিমল কুমার সরকার থানা পুলিশ নিয়ে উপস্থিত হয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।

শুধু তাই নয়, ভ্রাম্যামাণ আদালত বসিয়ে বরকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয় এবং অন্যদের মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। সাজাপ্রাপ্ত বরের নাম রাব্বী ইসলাম সোহাগ (২২)। তিনি একই এলাকার ফজলুল হকের ছেলে।

শুক্রবার রাতে উপজেলার বোতলাগাড়ি ইউনিয়নের দক্ষিণ সোনাখুলি মুন্সিপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

সৈয়দপুর থানার ওসি শাহজাহান পাশা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার মুন্সিপাড়ার ফজলুল হকের ছেলে রাব্বী ইসলাম সোহাগের একই এলাকার মোজাহারুল ইসলামের মেয়ে ও ফোরকানিয়া মাদ্রাসার ১০ম শ্রেণির ছাত্রী মনিরা আক্তারের বিয়ের আয়োজন চলছিল।

ঠিক সে সময় মোবাইল ফোনে খবর আসে বাল্যবিয়ের।

শুক্রবার রাতে বর, কনে ও তাদের উভয় পরিবারের সদস্যদের উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়।

ভ্রাম্যামাণ আদালত বসিয়ে বরকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয় এবং অন্যদের মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানান ওসি।

ট্যাগ: bdnewshour24বউ বাপের বাড়ি বর জেল