banglanewspaper

২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে স্যানিটারি ন্যাপকিন ও ডায়াপারের ওপর নতুন করে কোনো ধরনের কর আরোপ করেনি সরকার। বরং দেশি শিল্প সুরক্ষায় কাঁচামাল আমদানিতে সম্পূরক শুল্ক কমানো হয়েছে। গত বছরের মতোই লোকাল বিক্রির উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট ছিল তা বহাল রেখেছে।

রোববার (৩০ জুন) এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এই নির্দেশনা পহেলা জুলাই ২০১৯-থেকে ৩০ জুন ২০২১ পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

এতে বলায় হয়, স্যানিটারি ন্যাপকিন ও ডায়াপার পণ্য স্থানীয়ভাবে উৎপাদনের লক্ষ্যে উক্ত পণ্য উৎপাদনে ব্যবহৃত কাঁচামালের আমদানির ওপর আরোপিত মূল্য সংযোজন কর (আগাম কর ব্যতীত) ও সম্পূরক শুল্ক (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) শর্তসাপেক্ষে অব্যাহতি প্রধান করিল।

এছাড়াও বিদেশ থেকে আনা স্যানিটারি ন্যাপকিন বা ডায়াপারের ওপর আমদানি শুল্ক ৫০ শতাংশ কমিয়ে ৪৫ শতাংশ করা হয়েছে। অর্থাৎ ৫ শতাংশ শুল্ক কমানো হয়েছে।

এদিকে ন্যাপকিনে ভ্যাট ও কর বসানো হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে বিভ্রান্ত ছড়ানো হচ্ছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 ন্যাপকিন এনবিআর