banglanewspaper

পাবনার ঈশ্বরদীতে শেখ হাসিনার ট্রেনবহরে গুলিবর্ষণ ও হামলা মামলার রায় হতে যাচ্ছে ২৪ বছর পর । আগামী বুধবার (৩ জুলাই) মামলাটির রায় ঘোষণার দিন ঠিক করেছেন পাবনার অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালতের বিচারক রুস্তম আলী।

সোমবার (১ জুলাই) দুপুরে রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শোনার পর বিচারক রায় ঘোষণার দিন ঠিক করেন।

আলোচিত এই মামলার সব আসামি বিএনপির নেতাকর্মী। রোববার (৩০ জুন) এ মামলায় বিএনপির ৩০ নেতাকর্মীর জামিন নামঞ্জুর করে তাদর কারাগারে পাঠান আদালত। এছাড়া আদালতে হাজিরা না দেওয়ায় এদিন বিএনপির আরও ২২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

ওইদিন মামলায় বিএনপির ৫২ নেতাকর্মীর মধ্যে ৩০ জন আদালতে হাজির হয়ে জমিন আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে আসামিদের জেলহাজতে পাঠান।

এছাড়া আদালতে হাজির না হওয়ায় প্রধান আসামি ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টু এবং অন্যতম আসামি পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি ও ঈশ্বরদী পৌরসভার সাবেক মেয়র মকলেছুর রহমান বাবলু, বিএনপি নেতা হুমায়ুন কবীর দুলালসহ ২২ আসামির নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলীয় কর্মসূচিতে ট্রেনবহর নিয়ে রেলপথে খুলনা থেকে সৈয়দপুর যাচ্ছিলেন। পথে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে ট্রেনবহর যাত্রাবিরতি করলে অতর্কিত ওই ট্রেন ও শেখ হাসিনার কামরা লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করা হয়।

এ ঘটনায় দলীয় কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করে শেখ হাসিনা দ্রুত ঈশ্বরদী ত্যাগ করেন। পরে রেলওয়ে পুলিশ বাদী হয়ে তৎকালীন ছাত্রদল নেতা ও বর্তমানে ঈশ্বরদী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া পিন্টুসহ সাতজনকে আসামি করে মামলা করেন।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পর মামলাটি পুনঃতদন্ত করে পুলিশ। তদন্ত শেষে নতুনভাবে ঈশ্বরদীর শীর্ষস্থানীয় বিএনপি, যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীসহ ৫২ জনকে এ মামলার আসামি করা হয়।

ট্যাগ: bdnewshour24 শেখ হাসিনা