banglanewspaper

গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করার অভিযোগে করা মামলায় ক্লোজআপ ওয়ানখ্যাত কণ্ঠশিল্পী মৌসুমী আক্তার সালমার স্বামী সানাউল্লাহ নূরী সাগরের জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (৩ জুলাই) কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এ দায়ের ওই মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে উপস্থিত হন সানাউল্লাহ নূরী সাগর। 

এসময় তার আইনজীবী জামিনের আবেদন করলে বিচারক শুনানি শেষে আবেদন নামঞ্জুর করে সাগরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সালমা ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের ছেলে সানাউল্লাহ নূরে সাগরকে বিয়ে করেন। সাগর সালমার দ্বিতীয় স্বামী। তবে সালমাকে বিয়ে করার আগে সাগর ঢাকার বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে ২০১৪ সালের ৩ জুন বিয়ে করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সাগরের প্রথম স্ত্রী তাসনিয়া মুনিয়াত ওরফে পুষ্মী কক্সবাজারের মেয়ে। সালমার সঙ্গে সাগরের বিয়ের খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের আগেই প্রথম স্ত্রীর মা দিলারা খানম বাদী হয়ে কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এ মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর-২৫৪, ধারা-নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ এর ১১ (গ), ১১(গ)/৩০ ধারা। 

মামলায় সালমার স্বামী সানাউল্লাহ নূরী ওরফে সাগর ও তার বাবা-মাকে আসামি করা হয়। 

মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০১৪ সালের ৩ জুন সানাউল্লাহ নূরে সাগরের সঙ্গে কক্সবাজারের ওই মেয়ের ২০ লাখ টাকা কাবিনে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে নানাভাবে যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকেন সাগর। শারীরিকভাবে নির্যাতন করতে থাকেন।

মেয়ের কথা চিন্তা করে সাগরকে ৩ কিস্তিতে ১০ লাখ দেন। সেই টাকায় সানাউল্লাহ নূরে সাগর যুক্তরাজ্যে ‘বার অ্যাট ল’ পড়তে যান। এর মধ্যে বাংলাদেশে এসে কাউকে না জানিয়ে সাগর ক্লোজআপ তারকা সালমাকে গোপনে বিয়ে করেন এবং দ্বিতীয় বিয়ের কথা অস্বীকার করেন।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ২৫ জানুয়ারি সালমা ও শিবলী সাদিক বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। স্নেহা নামে তাদের সাত বছরের কন্যাসন্তান আছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 সালমা