banglanewspaper

নিজেকে কবিরাজ দাবি করে নারীদের বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করতেন তিনি। তার কাছে সমস্যা নিয়ে আসলে চিকিৎসার নামে এক নারীকে ধর্ষণ করেন ওই ব্যক্তি। এরপর তার এক আত্মীয়ার সঙ্গেও একই ঘটনা ঘটান। এরপরই ঘটনার জানাজানি হলে ওই ধর্ষককে পিটিয়ে হত্যা করেছে স্থানীয় নারীরা।

বৃহস্পতিবার ভারতের আসাম রাজ্যের পশ্চিম কার্বির আংলং জেলার সিতোই আদং গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি প্রকাশ্যে এসেছে শুক্রবার।

পুলিশ জানিয়েছে, হুসেন আলি নামে ওই ‘কবিরাজ’ এর বাড়ি পার্শ্ববর্তী হোজাই জেলার রাইকাটায়।  চিকিৎসা করতে ১ জুলাই সিতোই আদম গ্রামে এসেছিলেন তিনি। সেখানে এক চোখে দৃষ্টি হারানো মহিলাকে দেখার পর জানান, ৩ জুলাই তিনি ফের আসবেন। কথামতো সেদিনও তিনি আসেন।

চিকিৎসার নামে মহিলার নাকে কিছু শুকিয়ে, অর্ধচেতন করে ধর্ষণ করেন। চলে যাওয়ার আগে জানিয়ে যান, বৃহস্পতিবার আবার তাকে আসতে হবে। ওইদিন এসে, একই অছিলায় মহিলার আত্মীয় এক ষোড়শীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে কবিরাজের বিরুদ্ধে।

ঘটনা জানাজানি হলে, গ্রামের লোকজন ঘিরে ধরে ওই কবিরাজকে। এরপরই স্থানীয় নারীরা তাকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করে। এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

ট্যাগ: bdnewshour24 ধর্ষক