banglanewspaper

রাজধানীর তিনটি প্রধান সড়কে আজ রবিবার (৭ জুলাই) থেকে রিকশা চলাচল বন্ধ থাকবে। পূর্ব নিদ্ধারিত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে মাঠে নামবে ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশ। একই সঙ্গে এসব সড়কের দুই পাশের ফুটপাতও দখলমুক্ত করা হবে বলে জানা গেছে।

তবে বিকল্প ব্যবস্থা না করে রিকশা ও হকার উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহবান জানিয়েছে হকার সংগ্রাম পরিষদ। 

শনিবার (৬ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করে তারা।

এদিন গুলশান নগরভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মোহাম্মদ আতিকুল ইসলাম বলেন, পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী রবিবার (৭ জুলাই) থেকে রাজধানীর যেসব সড়কে রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে, তা মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, ডিএনসিসির যে দুটি রুটে রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে, সেই রুটগুলো সম্পূর্ণরূপে রিকশামুক্ত থাকবে। পাশাপাশি ফুটপাত দখলমুক্ত করতে সব ধরনের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলবে।

সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, মহানগরীর গাবতলী থেকে আজিমপুর এবং কুড়িল থেকে মালিবাগ হয়ে সায়েদাবাদ পর্যন্ত সড়ক রিকশামুক্ত করার কাজ করবে পুলিশ। আর এ সড়কের ফুটপাত দখলমুক্ত করার কাজ করবে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন। একইভাবে রিকশা ও ফুটপাত দখলমুক্ত অভিযান চলবে সাইন্সল্যাব থেকে শাহবাগ মোড় পর্যন্ত।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ডিএনসিসি এলাকার সব ফুটপাত দখলমুক্ত করতে আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করবে। যেখানে যেখানে অবৈধ দোকান, অবৈধ দখলদার পাওয়া যাবে তাদের জরিমানা করা হবে। ফুটপাতকে সম্পূর্ণ দখলমুক্ত করতে জিরো টলারেন্স নীতি মেনে চলতে হবে।

তিনি বলেন, প্রগতি সরণি থেকে রামপুরা হয়ে মালিবাগ পর্যন্ত রিকশামুক্ত সড়কে ৭৪টি ক্রসিং রয়েছে। এসব ক্রসিংয়ের রিকশাগুলো ভেতরের রাস্তায় চলতে পারবে, তবে কোনোভাবেই প্রধান সড়কে আসতে পারবে না। এরই মধ্যে বাস স্টপেজ ও গণপরিবহনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ডিএনসিসি আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য একেএম রহমতুল্লাহ, ডিটিসিএর নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী মো. আবদুল হাই, ঢাকা মহানগর ট্রাফিক বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ প্রমুখ।

ট্যাগ: bdnewshour24 রিকশা