banglanewspaper

বেনাপোল প্রতিনিধি: ভারতের ট্রাক মালিক সমিতি ও ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির ডাকা ধর্মঘটের কারণে বেনাপোল বন্দর দিয়ে সোমবার সকাল থেকে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে।

পরে দু’দেশের উচ্চ পর্যায়ের আলোচনা শেষে বিকাল ৪টা থেকে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে।

ভারতীয় ট্রাক মালিক সমিতি ও ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির অভিযোগ বেনাপোল স্থলবন্দরে কর্মরত নাইট গার্ড, হ্যান্ডলিং শ্রমিক ও সিএন্ডএফ এজেন্ট কর্মচারী কর্তৃক বেনাপোল স্থলবন্দরে ভারতীয় ট্রাক ড্রাইভারদের নিকট হতে অতিরিক্ত বকশিস আদায়ের নামে হয়রানী ও নির্যাতন করা হচ্ছে। প্রতিবাদে ও এর প্রতিকারের দাবীতে স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে।

ভারতীয় ট্রাক ড্্রাইভার অসিত বিশ্বাস বলেন, আমদানি পণ্য নিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশের পর বেনাপোল বন্দরে বিভিন্ন সংগঠনের কাছে নানান ভাবে হয়রানী হতে হয়, তারা বকসিস এর নামে জোর করে টাকা আদায় করে।

ইমিগ্রেশন পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল বাশার জানান, বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও দু’দেশের মধ্যে পাসপোর্ট যাত্রী চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস সুপার আজিজুল হক বলেন, ভারতীয় ট্রাক মালিক সমিতি ও ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতি এ ধরণের অভিযোগ আগে কখনও করে নাই। তারা আমাদের কাছে কোন অভিযোগ না দিয়ে হঠাৎ আমাদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ করে দিয়েছে।

বেনাপোল সিএ্যান্ডএফ যুগ্ম-সম্পাদক মহসিন মিলন বলেন, ভারতীয় কাষ্টমস, ব্যবসায়ী,  ট্রাক মালিক সমিতি ও ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির সঙ্গে আমাদের যৌথ আলোচনা ফলপ্রসু হওয়ায় বিকাল ৪টায় আমদানি-রফতানি বাণিজ্য শুরু হয়েছে। এর পরেও কোন সমস্যা থাকলে উভয়দেশের প্রতিনিধি বসে সমস্যার সমাধান করব।

ট্যাগ: bdnewshour24 বেনাপোল