banglanewspaper

পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশ থেকে মুম্বাই হামলার মূল হোতা ও কথিত জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তৈয়বার প্রধান হাফিজ সাঈদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর হাফিজ সাঈদকে লাহোরের কোট লাখপাট কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পাকিস্তান সংবাদমাধ্যমগুলোকে উদ্ধৃত করে আজ বুধবার সাঈদকে গ্রেপ্তারের খবর নিশ্চিত করেছে ভারতের সংবাদ সংস্থা এএনআই।

খবরে বলা হয়, কথিত জঙ্গি সংগঠনের প্রধান হাফিজ সাঈদের বিরুদ্ধে পাকিস্তানে ২৩টি সন্ত্রাসী মামলা রয়েছে এবং ২০০৮ সালে ভারতের মুম্বাইয়ে সন্ত্রাসী হামলার মূল পরিকল্পনাকারীও ছিল এই হাফিজ সাঈদ।

পাকিস্তানের লাহোর থেকে হাফিজ সাঈদ গুজরানওয়ালার একটি আদালতে যাচ্ছিলেন। আর তখনই পাঞ্জাবের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের ওয়াশিংটন সফরে যাওয়ার মাত্র কয়েকদিন আগে হাফিজ সাঈদকে গ্রেপ্তারের এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে।

চলতি মাসের শুরুতে আন্তর্জাতিক চাপের কাছে নতিস্বীকার করতে বাধ্য হয়ে পাকিস্তান হাফিজ সাঈদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগ দায়ের করে। পাকিস্তানের পাঞ্জাব পুলিশের সন্ত্রাসবিরোধী বিভাগের প্রথম রিপোর্টে সন্ত্রাসে অর্থ জোগানোসহ একাধিক অপরাধের ভিত্তিতে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

২০১৭ সালে হাফিজ সাঈদ ও তার চার সহযোগীকে সন্ত্রাস আইনের অধীনে পাকিস্তান সরকার আটক করে। কিন্তু পাঞ্জাবের জুডিশিয়াল রিভিউ বোর্ড তাদের বন্দিদশা বাড়ানোর আবেদন প্রত্যাখ্যান করে ১১ মাস পরই মুক্তি দেয় তাদের।

গত বছর, ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স- একটি প্যারিস ভিত্তিক বিশ্বব্যাপী সংস্থা যারা সন্ত্রাসবাদে মদদ জোগানো বন্ধে কাজ করছে, তারা পাকিস্তানকে এমন একটি তালিকাতে রাখে যে দেশটির আইন আর্থিক তছরুপ এবং সন্ত্রাসে মদদ জোগাতে অর্থ জোগান বন্ধের মতো চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলার ক্ষেত্রে খুবই দুর্বল। গত অক্টোবরে, এটি সন্ত্রাস তহবিল জোগান বা সন্ত্রাসবাদে মদদের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা করার জন্য পাকিস্তানকে অনুরোধ করেছিল।

ট্যাগ: bdnewshour24 মুম্বাই