banglanewspaper

সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপে পাকিস্তানের খারাপ পারফরম্যান্সের জন্য দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদেরই দায়ী করলেন সাবেক অধিনায়ক ও কোচ ওয়াকার ইউনিস। তাঁর দাবি, পাকিস্তানের সিনিয়র ক্রিকেটাররা ঠিক সময়ে অবসর নেন না। কেউ তাঁদের অবসর নিতে বলে না।

ফিটনেস ও ফর্ম না থাকা সত্ত্বেও খেলে যান সিনিয়র ক্রিকেটাররা। এর প্রভাব পড়ে দলের পারফরম্যান্সের উপর।

পাকিস্তানের একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওয়াকার বলেন, ‘শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আমাদের বিশ্বকাপের দল চূড়ান্ত ও স্পষ্ট হয়নি। সিনিয়র ক্রিকেটাররা ক্যারিয়ার দীর্ঘায়িত করতে চায়। কেউ তাদের সম্মানজনকভাবে অবসর নিতে বলে না। এটা বড় সমস্যা।

বছরের পর বছর ধরে আমরা একই জিনিস দেখে আসছি। কর্তৃপক্ষ বড় প্রতিযোগিতায় হারতে ভয় পায় বলে শেষ মুহূর্তে সিনিয়রদের দলে নেওয়া হয়।’

এবারের বিশ্বকাপে লিগ পর্যায়ের শেষ চারটি ম্যাচ জিতলেও পাকিস্তানের পারফরম্যান্সে মোটেই খুশি নন ওয়াকার।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচের শেষ ওভারে জয় পাওয়ার জন্য আমাদের যেভাবে লড়াই করতে হয়েছে, সেটা হওয়া উচিত নয়। আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল, দল গঠনের সময় ফিটনেস, সিনিয়রিটি সহ বিভিন্ন বিষয়ে আপস করা হয়। প্রতিবারই বিশ্বকাপের পর অধিনায়ক বদল করা হয়, কোচকে ছাঁটাই করা হয়, প্রধান নির্বাচককে সরিয়ে দেওয়া হয় এবং ঘরোয়া ক্রিকেটের পরিকাঠামোকে দায়ী করা হয়।

প্রতি চার বছর অন্তর একই ঘটনা দেখা যায়। শুধু চরিত্রই বদলায়, আর কিছু হয় না। একই ভুলের পুনরাবৃত্তি ঘটে। পাঁচ বছর আগে আমি পাকিস্তানের ক্রিকেটের উন্নতির জন্য পিসিবি’র কাছে পরিকল্পনা জমা দিয়েছিলাম।

আমি বলেছিলাম, ফিটনেসের ক্ষেত্রে আপস করা যাবে না, যে খেলোয়াড়রা প্রতি ওভারে সাড়ে তিন থেকে চার রান নিতে পারে তাদের খেলাতে হবে, সিনিয়রদের ঠিক সময়ে অবসর নেওয়ার কথা বলতে হবে। কিন্তু তারপরও কিছুই হয়নি।’

ট্যাগ: bdnewshour24 পাকিস্তান