banglanewspaper

আলফাজ সরকার আকাশ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: জন্মের কিছুদিন পর থেকে ঠান্ডা লেগেই থাকতো। এক-পা দু-পা করে এখন হাটতে পারে সে। চোখের চাহনি দিয়ে বুঝায় যেন, তার বুকে অনেক ব্যাথা লাগে। মায়ের কোলে বসেই জোরে জোরে নিশ্বাস নিতে নিতে বলে "বাবা নাকে মাম (পানি)"।অসুস্থ একমাত্র ছেলে শিশুর কথা কাঁদতে কাঁদতে এভাবেই বলছিলেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর  ইউনিয়নের নিজমাওনা গ্রামের কাঠমিস্ত্রী ছামিদুল ইসলাম নামের এক বাবা। 

রবিবার (২১ জুলাই) সকালে অসুস্থ  শিশুটির বাড়ীতে গিয়ে মায়ের কোলে শিশুর কান্নার এমন হৃদয়স্পর্শি দৃশ্য দেখা যায়। 

১৯ মাস বয়সী শিশু দিদারুল ইসলামের হৃদযন্ত্রের মধ্যে দুটি ছিদ্র দেখা দিয়েছে বলে পরীক্ষার পর নিশ্চিত করেছেন ডাক্তার । 

শিশুটির বাবা কাঠমিস্ত্রী ছামিদুল ইসলাম জানান, জন্মের কিছুদিন পর থেকে দিদারুলের ঠান্ডা জনিত সমস্যা প্রায় লেগেই থাকতো। বিভিন্ন ফার্মেসী থেকে ঔষধ খাওয়ানোর পর থেকে আস্তে আস্তে তার এ সমস্যা আরো বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে তার প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে মাওনার শাপলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কয়েকদিন চিকিৎসা দেয়ার পর একই এলাকার আলহেরা হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ  ডঃ হুমায়ুন কবিরের পরামর্শ নেয়া হয়। উনার নির্দেশনায় তাকে বাংলাদেশ ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এ্যান্ড রিসার্চ ইনিষ্টিটিউট-এর বহিঃ বিভাগে দেখানো হলে সেখানে ডাক্তার এনজিওগ্রাম পরীক্ষা করার নির্দেশ দেন।

পরীক্ষা করে জানা যায় যে, দিদারুলের হৃদযন্ত্রের মধ্যে দুটি ছিদ্র রয়েছে। এজন্য অপারেশন লাগবে। সে অপারেশনে প্রায় ২ লাখ টাকার প্রয়োজন। আমি একজন দরিদ্র মানুষ। কাঠমিস্ত্রীর কাজ করি। এতো টাকা কোথায় পাবো। যদি কোন সু-হৃদয়বান ব্যক্তি আমার ছেলের চিকিৎসার  সাহায্যে এগিয়ে আসতো তবে  হয়তো আমার সোনার চাঁন বাঁচতো।

অসুস্থ দিদারুল ইসলামের চিকিৎসার সাহায্যে ইতমধ্যে স্বপ্নময় দুরন্ত প্রতীক" (SDP), নিজ মাওনা ইউথ ফোরাম নামক সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংঘটন এগিয়ে এসেছে। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার চালিয়ে বিভিন্ন ব্যক্তিদের কাছ থেকে  ইতমধ্যে প্রায় ৪০ হাজার টাকা সংগ্রহ করেছেন।

শিশু দিদারুল ইসলামের চিকিৎসার সার্বিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়া স্বেচ্ছাসেবক সংঘটন  "নিজ মাওনা ইউথ ফোরাম"-এর সভাপতি স্বপন ফকির জানান, এমন বয়সে একটি ফুটফুটে শিশুটির প্রাণ সামান্য অর্থের অভাবে ঝরে যাবে তা মেনে নিতে পারছিনা। তাই আমাদের সংগঠন শিশুটির পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। প্রাথমিক ভাবে তার চিকিৎসা,ঢাকার হাসপাতালে পাঠানো, পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানোসহ সকল বিষয়ে সহযোগিতা করা হচ্ছে।  তবে অর্থনৈতিক বিষয়ে সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিদের সহায়তা জরুরী। সে ক্ষেত্রে অসুস্থ শিশু দিদারুল ইসলামের বাবার বিকাশ নাম্বার ০১৭৬৮০-০২৪৬২৪।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল এ্যান্ড রিসার্চ ইনিস্টিটিউট-এর সহযোগী অধ্যাপক ও সিনিয়র কনসালটেন্ট কার্ডিওলজিস্ট এবং হৃদরোগ  বিশেষজ্ঞ ডাঃ তওফিক শাহরিয়ার হক জানান, শিশু বয়সে হৃদযন্ত্রে ছিদ্র দেখা দিলে যথাযথ চিকিৎসা করা হলে তা ভালো হয়ে যায়। তবে অবস্থা খারাপের দিকে চলে গেলে অপারেশনের প্রয়োজন হতে পারে।

ট্যাগ: bdnewshour24 শ্রীপুর