banglanewspaper

ওসামা বিন লাদেনকে নিয়ে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএকে তথ্য দিতো পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স (আইএসআই)। সেই তথ্যের ভিত্তিতেই সাবেক আল-কায়েদা প্রধান ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা করতে সক্ষম হয় আমেরিকা।

মঙ্গলবার এমন দাবি করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

‘আইএসআইয়ের তথ্যের ভিত্তিতে ওসামা বিন লাদেনের অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয় তারা। ফোন সংযোগের মাধ্যমে ওসামার প্রাথমিক অবস্থান জানতে সিআইএকে সাহায্য করেছিল আইএসআই।’

এতদিন পর্যন্ত জানা ছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ নিজেদের নেটওয়ার্ক কাজে লাগিয়ে অ্যাবটাবাদে ওসামার অবস্থান চিহ্নিত করে। এরপর তাকে হত্যা করে তারা। আর বিন লাদেনকে নিয়ে তথ্য সংগ্রহে তারা ব্যবহার করেছিল পাকিস্তানি চিকিৎসক সাকিল আফ্রিদিকে।

পাকিস্তান জেলে বন্দি সাকিলের মুক্তির দাবিতে লাদেন হত্যার এক দশক পরও সরব ওয়াশিংটন। আফ্রিদিকে ছাড়া নিয়ে এক প্রশ্নের উত্তরেই বিন লাদেন হত্যা নিয়ে সিআইএ-আইএসআই যোগের কথা জানান ইমরান। তবে যেভাবে পাকিস্তানের মধ্যে ঢুকে লাদেনকে মার্কিন নেভি সিল হত্যা করেছে, তাতে যে ইসলামাবাদ হতাশ, সে কথাও বলেন তিনি।

তার কথায়, ‘পাকিস্তান সব সময়ই মার্কিন বন্ধু বলে নিজেদের মনে করে। ওসামাকে নিয়ে কোনো তথ্য দিলে আমরা অবশ্যই তাকে খুঁজে বার করতাম। ওসামা হত্যা আমাদের অপ্রস্তুত করেছে। আমেরিকা আমাদের আদৌ বিশ্বাস করে না। তাই তারা আমাদের ভূখণ্ডে ঢুকে একজনকে হত্যা করল।’

ট্যাগ: bdnewshour24 পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্র লাদেন ইমরান খান