banglanewspaper

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্রলীগ কর্মী ফারুক হোসেন হত্যা মামলায় একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীকে রাজশাহীর আদালতে নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে তাকে হুইল চেয়ারে করে আদালতে নেয়া হয়। আজ মামলাটিতে অভিযোগ গঠন করা হবে।

রাজশাহীর অতিরিক্ত মহানগর ও দায়রা জজ আদালতে শুনানি শেষে এই অভিযোগ গঠনের কথা রয়েছে।

সাঈদীর আদালতে আসাকে কেন্দ্র করে আদালতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। আদালত চত্বরের কয়েকটি স্থানে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ ও ডিবি পুলিশ। তল্লাশি ছাড়া কাউকেই প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

জানা গেছে, ২০১০ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি রাবিতে ছাত্রলীগ ও ছাত্রশিবিরের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এতে ছাত্রলীগ কর্মী ফারুক নিহত হন। এ ঘটনায় রাবি ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম অপু বাদী হয়ে নগরীর মতিহার থানায় মামলা করেন।

এ মামলায় জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা মতিউর রহমান নিজামী, আলী আহসান মো. মুজাহিদ ও দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীকেও আসামি করা হয়।

রাজশাহীর অতিরিক্ত মহানগর দায়রা ও জজ আদালতের সরকারী কৌঁসুলি শিরাজি শওকত সালেহীন জানান, মামলায় মোট আসামির সংখ্যা ১০৭ জন। ২০১২ সালের জুলাই মাসে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। আজ এর শুনানি হবে। এরপর অভিযোগ গঠন হবে।

তিনি আরও জানান, মামলার ৬০ জন আসামি জামিনে আছেন। বাকিরা পলাতক। এ মামলায় সাঈদীরও জামিন রয়েছে। তবে অভিযোগ গঠনের সময় আসামিদের হাজির থাকতে হয়। তাই সাঈদীকে রাজশাহী আনা হয়েছে।

ট্যাগ: bdnewshour24 ছাত্রলীগ আদালত সাঈদী