banglanewspaper

নাজমুস সাকিব মুন, পঞ্চগড় প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ে সাত বছরের এক শিশুর উপর অজ্ঞাত হামলাকারীর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে ওই শিশুটি বাম হাতের একটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

সদর উপজেলার খুনিয়া পাড়া এলাকায় বুধবার রাত সাড়ে ১০ টায় এ ঘটনা ঘটে। আহত আফ্রিদি ওই এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে।

পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়, বুধবার রাত দশটার দিকে জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী রত্না বেগম ছেলে আফ্রিদি ও আরাফাতকে ঘরে তালা দিয়ে পাশের বাড়িতে যান। এর কিছুক্ষণ পর আফ্রিদি ও আরাফাতের চিৎকারে তাদের মা ও প্রতিবেশীরা বাসায় আসলে আফ্রিদিকে বাম হাতের একটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হওয়া‌ অবস্থায় পাওয়া যায়।

সেখান থেকে দ্রুত আফ্রিদিকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এ আফ্রিদিকে রেফার্ড করা হয়। আফ্রিদি জানান, তার মা বাসায় না থাকার সুযোগে অপরিচিত এক ব্যক্তি তাদের দুই ভাইয়ের উপর অতর্কিত হামলা করেন।

এ সময় ধারালো অস্ত্রের কোপ ঠেকাতে গিয়ে তার বাম হাতের আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তারা চিৎকার করলে হামলাকারী ঘরের কোন ভেঙে পালিয়ে যায়। শিশু আফ্রিদি এর আগে ওই ব্যক্তিকে কখনো দেখেননি বলে সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

জাহাঙ্গীর আলম ছেলে আফ্রিদির অবস্থা আশঙ্কামুক্ত রয়েছে বলে নিশ্চিত করেন। তবে গত রাতের ঘটনায় তারা দুই ভাই এখনো আতঙ্কগ্রস্থ রয়েছে। এদিকে চলমান ছেলে ধরা গুজবে আফ্রিদির উপর এই হামলায় খুনিয়া পাড়া এলাকায় জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

আফ্রিদির উপর হামলার ঘটনায় অনেকেই তাদের শিশুদের একা ছাড়তে ভয় পাচ্ছেন। ছেলেধরা গুজব কি সত্যিই রূপ নিচ্ছে বলে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

পঞ্চগড় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু আককছ আহমেদ বলেন, খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। এখন পর্যন্ত সেই অজ্ঞাত ব্যক্তির কোন পরিচয় পাওয়া সম্ভব হয়নি। তবে অপরাধীর পরিচয় পেতে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ছেলে ধরা গুজবে কাউকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেন।

একই সাথে আফ্রিদির উপর হামলার ঘটনায় পারিবারিক কোন শত্রুতার সম্পৃক্ততা রয়েছে কি না সে বিষয়েও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান আককছ আহমেদ।

ট্যাগ: bdnewshour24 পঞ্চগড়