banglanewspaper

মধ্যপ্রাচ্যে হুমকি মনে করায় ইরানের ওপর নানা ধরনের নিষেধাজ্ঞারোপ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। তারই ধারাবাহিকতায় এবার দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাওয়াদ জারিফের ওপর নিষেধাজ্ঞারোপ করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। স্থানীয় সময় বুধবার জারিফকে নিষেধাজ্ঞার আওতাভুক্ত করে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়।

মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিফেন মানুচিন ওয়াশিংটনে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইরানের সঠিক ইতিহাস জানার আহ্বান জানানোর একদিন পর নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হলেন।

এর আগে গত মাসের গোড়ার দিকে ওয়াশিংটন জারিফের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিলে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেছিলেন, তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে তিনি কোনোভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন না। ইরানের বাইরে তার কোনো ব্যাংক একাউন্ট বা সম্পদ নেই এবং ইরানই হচ্ছে তার জীবনের সবকিছু।

জারিফ বলেছিলেন, তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার একমাত্র উদ্দেশ্য হবে বহির্বিশ্বের সঙ্গে ইরানের যোগাযোগ সীমিত করে দেয়া।

তবে তার ওপর নিষেধাজ্ঞারোপের পর ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তিনি বিশ্বব্যাপী ইরানের প্রধান মুখপত্রের ভূমিকা পালন করার কারণে তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রশ্ন করেন: ইরানের প্রধান মুখপত্রের ভূমিকা পালনের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের জন্য এতটা বিপজ্জনক হয়ে গেল?

তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যাপারে নিজের আগের এক বক্তব্যের পুনরাবৃত্তি করে জারিফ বলেন, এ নিষেধাজ্ঞায় তার বা তার পরিবারের কোনো ক্ষতি হবে না কারণ, ইরানের বাইরে তার কোনো সম্পদ বা স্বার্থ নেই।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্র তার টুইট বার্তায় বলেন, মার্কিন এজেন্ডা বাস্তবায়নের পথে তিনি মস্তবড় হুমকি হতে পেরে আনন্দবোধ করছেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের পথে আমাকে হুমকি হিসেবে বিবেচনা করার জন্য ধন্যবাদ’।

ট্যাগ: bdnewshour24 পররাষ্ট্রমন্ত্রী