banglanewspaper

ভারতের জি বাংলায় প্রচারিত গান বিষয়ক রিয়্যালিটি শো ‘সা রে গা মা পা’-এর সেকেন্ড রানারআপ ফলাফল ঘোষণার আগে থেকেই সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন গোপালগঞ্জের ছেলে মাঈনুল আহসান নোবেল। তার চ্যাম্পিয়ন না হওয়া নিয়ে জনমত পক্ষে-বিপক্ষে বিভক্ত হয়ে গেছে। কিন্তু সম্প্রতি তার দেয়া একটি সাক্ষাৎকার নিয়ে তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া।

নোবেলের মতে, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা ‘আমার সোনার বাংলা’ গানটির চেয়ে প্রিন্স মাহমুদের লেখা এবং জেমসের গাওয়া ‘বাংলাদেশ’ গানটি বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য অনেক স্পষ্ট ভাবে তুলে ধরে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা এই গানটিকে জাতীয় সংগীতের মর্যাদা দেয়ার দাবি জানিয়েছিলেন। আমিও সেটা মানি।’

এই মতামত ‘একান্ত ব্যক্তিগত’ বলেই জানিয়েছিলেন নোবেল। তবে তা বৃহত্তর বাঙালির কাছে ভালো ভাবে গৃহীত হয়নি। নোবেলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘আমি এই ব্যাপারে কথা বলতে চাই না।’ তবে গায়ক রূপম বলেন, ‘বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত যা আছে, ঠিক আছে। যে গানটি নিয়ে এত কথা হচ্ছে, তা উচ্চশ্রেণির সংগীত বলে মনে করি না। জাতীয় সংগীত হওয়া তো দূরের কথা।’

তবে এই প্রথম নয়। নোবেলের সঙ্গে বিতর্ক সমার্থক হয়ে গেছে। পর্দার বাইরে তার আচরণ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ঘনিষ্ঠদের মতে, নোবেল মানুষ ভালো। তবে তার আচরণগত সমস্যার কারণেই বিতর্ক দানা বাঁধে। এর আগে ‘সা রে গা মা পা’-এর অনুষ্ঠানে প্রিন্স মাহমুদের লেখা ও সুর করা বেশ কয়েকটি গান গাইলেও কোনোটাতেই তার নাম উল্লেখ করেননি। এ নিয়েও বিতর্কে জড়ান নোবেল।

ট্যাগ: bdnewshour24 জাতীয় সংগীত নোবেল