banglanewspaper

চূড়ান্ত হিসাব কষতে গেলে কিন্তু আমরা কোথাও নিরাপদ নই। নিজের সচেতনতাই আত্মনির্ভরশীলতার উপরই আমাদের আস্থা রাখতে হবে। একমাত্র নিজের জন্য নিজেই শতভাগ নিরাপদ। কারণ পৃথিবীর সবচেয়ে আপন বলে আমরা যাদের মানি, যাদের কারণে পৃথিবীতে আমাদের আগমন তারাই আবার স্বার্থান্ধ হয়ে আমাদের জন্য অনিরাপদ হয়ে ওঠে। কখনো আবার সন্তানদের আচরণের কারণেও তারা সন্তানের ওপর অতিষ্ঠ হয়ে পড়ে। 

খাগড়াছড়ির রামগড়ে বাবার কাছে ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক মাদরাসা ছাত্রী। অভিযোগ উঠেছে মায়ের সহযোগিতায় এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর থেকে পলাতক রয়েছে ওই বাবা।

স্থানীয়রা মা- মেয়েকে থানায় নিয়ে গেলে পুলিশের কাছে বাবার যৌন নির্যাতনের বর্ণনা দেয় ওই ছাত্রী। এ সময় সে জানায় ধর্ষণ করতে বাবাকে সহযোগিতা করতো তারই মা। মেয়েটি জানায়, তার বাবা ২০১৯ সালের ২ জুলাই রাতে প্রথমবার তাকে ধর্ষণ করে। একইভাবে আরও ২-৩ বার ধর্ষণের শিকার হয় সে। বাবার পা ধরে ক্ষমা চেয়েও ধর্ষণের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারেনি মেয়েটি।

সবশেষ গত ১২ জুলাই গভীর রাতে ছোট ভাইবোন নিয়ে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় তাকে আবারও ধর্ষণ করতে গেলে সে তার বাবাকে বলে, কাল আমার কোরআন মজিদ পরীক্ষা। আমার সঙ্গে খারাপ কাজ না করে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলেন। কিন্তু এতেও মন গলেনি বাবা নামধারী সে পাষণ্ড।

মেয়েটি জানায়, সে চিৎকার করতে চাইলে মা তার মুখ চেপে ধরতো। ধর্ষণের কথা প্রকাশ করলে তাকে গলাটিপে হত্যার পর লাশ বস্তায় ভরে পুঁতে ফেলারও হুমকি দিতো তার বাবা।

মেয়েটি আরও জানায়, ঘটনাটি প্রথমে তার দাদিকে বলে। কিন্তু দাদি কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় গত ১৪ জুলাই তার চাচাকে জানায় বিষয়টি। স্থানীয় ইউপি মেম্বার মো. আব্দুল হান্নান বলেন, বৃহস্পতিবার মেয়েটির চাচার কাছ থেকে বিষয়টি জানার পর তারা মেয়ের মুখে অভিযোগটি শোনেন। পরে রাত সাড়ে ৯টার দিকে মেয়ে ও তার মাকে থানায় নিয়ে আসেন তারা।

রামগড় থানার পুলিশ জানায়, মেয়ে ও তার মাকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। মেয়েটি একাধিকবার ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছে এবং তার মাও বিষয়টি স্বীকার করেছেন। সূত্র- ইত্তেফাক ও নয়া দিগন্ত ১৯ জুলাই ২০১৯ খ্রিঃ স্বামী পরিত্যক্তা স্কুলের ম্যাম ছাত্রকে প্রাইভেট পড়ানোর নামে যৌন নিপীড়ন করে নিজের যৌন স্বাদ আস্বাদনের ইতিহাসও আমাদের দেশে বিদ্যমান। সুতারাং যৌন নিপীড়কের ক্ষেত্রে পুরুষ অথবা নারী বিভেদ করবার অবকাশ রাখে না। যৌন নির্যাতনকারীদের মধ্যে কোন লিঙ্গ বৈষম্য করলেও চরম ভুল করবো আমরা। কারণ আজ যেটি কল্পনা কাল আবার সেটি বাস্তবতায় গড়াতে কতক্ষণ?

লেখক: মোহাম্মদ আবদুল্লাহ মজুমদার
শিক্ষার্থী, টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও আলোকচিত্র বিভাগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

(এ বিভাগে প্রকাশিত মতামত লেখকের নিজস্ব। বাংলাদেশ নিউজ আওয়ার-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে প্রকাশিত মতামত সামঞ্জস্যপূর্ণ নাও হতে পারে।)

ট্যাগ: bdnewshour ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়