banglanewspaper

এম,লুৎফর রহমান,নরসিংদী: কোরবানি ঈদের বাকি আর সপ্তাহ খানেক। মসলার বাজার গুলোতে এরই মধ্যে বেড়েছে ক্রেতাদের ভিড়। ঈদে মাংস রান্নায় বিভিন্ন ধরনের মসলার দরকার হয়।

তাই ঈদের সময় তুলনা মূলকভাবে চাহিদা বাড়ে মসলার। বাজার বুঝে এ সময় দামও বাড়িয়ে দেন কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা। সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে আমদানিকৃত মসলা পণ্য এলাচের। এ ছাড়া পেঁয়াজ, আদা, রসুন, শুকনা মরিচ, জিরা, দারুচিনিসহ প্রায় সব মসলা পণ্যের বাজার দুই সপ্তাহ ধরে ঊর্ধ্বমুখী।

রসুনের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির পর দ্বিতীয় দফায় নরসিংদী বাজারে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে দাম বাড়ানোর লক্ষ্যে সক্রিয় মসলা ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট। নেপথ্যে রয়েছে অসাধু ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট।

নরসিংদীর বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, ২৫ টাকা কেজির পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকা পর্যন্ত। পেঁয়াজের কেজি প্রতি মূল্য বেড়েছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। ৭০ টাকা কেজির রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা দরে।

রসুনের কেজি প্রতি মূল্য বেড়েছে ৭০ টাকা। ১৫ দিন পূর্বে ১ কেজি এলাচ বিক্রি হয়েছে ১৮শ’ টাকায়। পক্ষকালের ব্যবধানে এখন ১ কেজি এলাচ বিক্রি হচ্ছে ২৮শ’ টাকায়। এলাচের প্রতি কেজিতে মূল্য বেড়েছে ১ হাজার টাকা।আদা এক সপ্তাহ আগে দাম ছিল ১৪০ টাকা,বর্তমানে ১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দারুচিনি ৩৩০ টাকা ছিল,বর্তমানে ৪৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

হলুদ ১২০ টাকা থেকে বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ টাকায়। মরিচ ছিল ১৪০ টাকা,বর্তমানে ১৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। জিরার দাম ছিল ৩১০ টাকা,বর্তমানে ৩৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তেজপাতার দাম ছিল ১০০ টাকা,বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকায়।

কিসমিসের দাম ছিল ৩২০ টাকা,বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ টাকা। লবনের দাম ছিল ৩০ টাকা,বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়।নরসিংদীতে এই সময়টাতে মসলার কৃত্রিম সংকট তৈরি করে বাজারে এই পণ্য গুলির দাম কয়েক গুণ বাড়িয়ে দেন বিক্রেতারা। কোরবানির ঈদের অন্যতম প্রয়োজনীয় পণ্য মসলা নিয়ে শুরু হয়ে গেছে এখন তেলেসমাতি কারবার।

কোরবানির ঈদের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে নরসিংদীর মসলা সিন্ডিকেট অবাধে মূল্য বাড়িয়ে সাধারণ মানুষকে শোষণ করে টাকার পাহাড় গড়ে তুলছে। মসলা সিন্ডিকেটের রয়েছে একশ্রেণীর আমদানি কারক এবং এক শ্রেণীর স্থানীয় আড়তদার ও পাইকারি ব্যবসায়ী। অসৎ আড়তদারদের উদ্দেশ্য হচ্ছে, বাজারে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে ভারত থেকে পেঁয়াজ রসুন আমদানি করা।

সরকারি হিসাব অনুযায়ী দেশে ২৪ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজের চাহিদা রয়েছে। এর মধ্যে দেশে উৎপাদিত হয় ২০ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ। এই ৪ লাখ টন পিঁয়াজের উৎপাদন ঘাটতিকে সামনে রেখেই ভারতসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয় লক্ষ লক্ষ টন পেঁয়াজ। এ বছর পেঁয়াজের উৎপাদন মৌসুম শেষ হয়েছে চৈত্র মাসে। বাজারে পেঁয়াজের আমদানিতে কোন কমতি নেই।

এরপরও হঠাৎ করে মাত্র সপ্তাহাধিককালে পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি ৪০/৪৫ টাকা বাড়িয়ে দিয়েছে মসলা সিন্ডিকেট। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৪৫ টাকা  দরে বিক্রি হচ্ছে। উচ্চ ফলনশীল জাত এবং হাইব্রিড জাতের পেঁয়াজ উদ্ভাবনের ফলে উৎপাদন বেড়েছে। কিন্তু এই উৎপাদনের সুফল জনগণ ভোগ করতে পারছে না। ব্যবসায়ীরা বলছেন, চাহিদার চেয়ে আমদানি কম হওয়ায় বাজারে সংকট রয়েছে।

নরসিংদী মসলা বাজারের খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, কোরবানির ঈদে মসলার চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় পাইকারি ভাবে দাম বেড়েছে। তাই আমাদেরও বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের নজরুল মিয়া ও নাজমুল বলেন, প্রতি বছর ঈদ এলেই ব্যবসায়ীরা সব কিছুর দাম বাড়িয়ে দেয়। এতে আমাদের বিপাকে পড়তে হয়। যে বাজেট নিয়ে বাজারে এসেছি, তাতে প্রয়োজনীয় সব কেনা যাবে না। প্রতি বছরই কোরবানির ঈদের আগে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে মসলার বাজারে আগুন লাগে। দ্বিগুণ-তিনগুণ কিংবা সুযোগ বুঝে তার বেশি দাম হাঁকান ব্যবসায়ীরা।

এ নিয়ে বরাবরই হা-হুতাশ বাড়ে দেশের নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণির মানুষের। দাম বৃদ্ধি ধনীদের জন্য অসুবিধার কারণ না হলেও সীমিত আয়ের মানুষ এই কোরবানির ঈদে বাজারে মসলা কিনতে গিয়ে পড়েন বিড়ম্বনায়। অনেকেই অভিযোগ আর ক্ষোভ উগড়ে দেন। কিন্তু কে শোনে কার কথা! মসলা কিনতে আসা কাউছার বলেন, ঈদে মসলার দাম বাড়ায় আমরা সাধারণ ক্রেতারা বিপাকে পড়েছি।

কোনো উৎসব এলে ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে মসলার দাম বাড়িয়ে দেন। ঈদকে কেন্দ্র করে জিনিস পত্রের দাম বাড়ানোটা ব্যবসায়ীদের একটা অপকৌশল। আর আমরা সাধারণ ক্রেতারা বাড়তি দাম দিয়ে তাদের অপকৌশলের বলি হই। ঈদের বাজার করতে আসা নুসরাত জাহান বলেন, ঈদের সময় যেহেতু স্পাইসি খাবার বেশি রান্না করা হয়, তাই মসলার চাহিদা একটু বেশি থাকে।

তবে মসলা কিনতে এসে দেখি দাম গত ১৫ দিন পূর্বের চেয়ে অনেক বেড়েছে। দাম বাড়ার কারণে যতটুকু কিনতে চেয়েছিলাম তার চেয়ে একটু কম কিনতে হচ্ছে। সরকারের নজরদারি থাকলে ব্যবসায়ীরা দাম বাড়াতে পারতেন না বলেও মনে করেন তিনি।

ট্যাগ: bdnewshour24 ঈদ নরসিংদী মসলার বাজার