banglanewspaper

জম্মু-কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিল করায় ভারতের তীব্র বিরোধিতা করেছে পাকিস্তান। হিন্দুবাদী মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্তকে ‘বেআইনি’ ও ‘একতরফা’ বলে মন্তব্য করেছে ইসলামাবাদ।

ইমরান প্রশাসন জানিয়েছে, তারা সর্বতোভাবে ভারতের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করবে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘জম্মু-কাশ্মীর হলো আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত বিতর্কিত অঞ্চল। জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব অনুযায়ী একতরফাভাবে ভারত সরকারের নেয়া কোনো সিদ্ধান্ত এই অবস্থানের পরিবর্তন করতে পারে না। তাই পাকিস্তান অত্যন্ত কড়া ভাষায় এর নিন্দা এবং বিরোধিতা করছে।’ 

পাকিস্তান জানিয়েছে, কাশ্মীরের মানুষের প্রতি তারা দায়বদ্ধ রয়েছে। তাদের রাজনৈতিক, কূটনৈতিক এবং নৈতিক সমর্থন দেয়ার প্রশ্নে তারা অঙ্গীকারবদ্ধ। 

এই সূত্র ধরেই পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেছেন, পাকিস্তান জাতিসঙ্ঘ, ইসলামিক দেশগুলোর সংগঠন, বন্ধু দেশ এবং মানবাধিকার সংগঠনগুলোর কাছে আবেদন জানাবে, যাতে তারা এই ইস্যুতে সরব হয়।’ 

পাকিস্তানের আশা, কাশ্মীরের মানুষ ভারত সরকারের এই পদক্ষেপকে আগামী দিনে ভুল প্রমাণিত করবে।

প্রসঙ্গত, ভারতে সোমবার (৫ আগস্ট) রাজ্যসভায় এই সংক্রান্ত প্রস্তাব পেশ করেন কেন্দ্রীয় স্বারষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এক ঘণ্টার মধ্যেই সংশ্লিষ্ট বিজ্ঞপ্তিতে সই করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। 

এই প্রস্তাব অনুযায়ী, জম্মু-কাশ্মিরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিল হওয়ার পাশাপাশি পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদাও তাদের আর থাকছে না। জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করা হচ্ছে। জম্মু-কাশ্মীর হতে চলেছে বিধানসভা পরিচালিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। আর লাদাখ হবে প্রশাসক দ্বারা পরিচালিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল।

ট্যাগ: bdnewshour কাশ্মীর