banglanewspaper

ফটোসেশনের জন্য নয় যথাযথভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান করতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, এডিস মশা ভয়ঙ্কর, এরা কামড় দিতে চেহারার দিকে তাকায় না। সুযোগ পেলে রক্ত খাবে, মেয়রেরও রক্ত খাবে।

মঙ্গলবার (০৬ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

মন থেকে জনস্বার্থে যথাযথভাবে পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ক্যামেরার সামনে ফটোসেশনের জন্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান নয়।

‘এডিস মশা ভয়ঙ্কর, এরা কামড় দিতে চেহারার দিকে তাকায় না। আপনি কাউন্সিলর, মন্ত্রী, এমপি নাকি মেয়র কোনো দিকে তাকাবে না। সুযোগ পেলে রক্ত খাবে, মেয়রেরও রক্ত খাবে, মন্ত্রীর রক্ত খাবে, এমপির রক্ত খাবে, নেতার রক্ত খাবে-কাউকে ছাড়বে না।’

সবাইকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের সবাইকে সতর্ক হতে হবে সাবধান হতে হবে এবং আমাদের করণীয় যথাযথভাবে পালন করতে হবে।

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও আমাদের নেতা শেখ হাসিনার নির্দেশে সারাদেশে তিন দিনব্যাপী পরিচ্ছন্নতা অভিযানের যে কর্মসূচি আমরা হাতে নিয়েছি সে কর্মসূচি আমরা সিনসিয়ারলি এবং সিরিয়াসলি পালন করবো। জনস্বার্থে এবং দেশের স্বার্থে আমরা এ কাজটি করবো।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, নামকাওয়াস্তে কয়েকটি কর্মসূচি পালন করলাম এরকম নয়, বেশিরভাগ ওয়ার্ডে এ কর্মসূচি পালন হলো না। দায় সারা গোছের কর্মসূচির কোনো প্রয়োজন নেই। এতে এডিস মশার প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস হবে না, এডিস মশার উৎস আমরা ধ্বংস করতে পারবো না এবং ডেঙ্গু যে ভয়ঙ্কর বিস্তার আমরা রোধ করতে পারবো না। 

ডেঙ্গুর বিস্তার প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আমরা মুখে যতটা নিয়ন্ত্রণের কথা বলি না কেন এখনও নিয়ন্ত্রণে আসে নেই। সামনে ঈদ, ঈদে অনেকে শহর ছেড়ে ঘরমুখো হবে; অনেকে যাচ্ছেন, অনেকে যাবেন এখানেও ডেঙ্গু জ্বরের বিস্তার এর আশঙ্কা রয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের প্রথম কাজ হলো সচেতনতা তৈরি করা, সবাইকে সতর্ক করা। এই মশার বংশ বিস্তার ও প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস করা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা আপনার আশপাশের এলাকা কর্মস্থল জনপ্রতিনিধিরা তাদের নির্বাচনী এলাকা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা দেখতে চাই ঢাকা সিটির প্রতিটি ওয়ার্ডে পরিচ্ছন্নতা অভিযান। নেত্রী জানতে চেয়েছেন কয়টা ওয়ার্ডে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান চালানো হয়েছে। পরিচ্ছন্নতা অভিযান একদিন করলে হবে না প্রতিদিন করতে হবে, মন থেকে কমিটমেন্ট থেকে এ কাজটা করতে হবে।

তিনি বলেন, নোংরা শহরের মধ্যে ঢাকা শহর চার নম্বরে আছে। এই ঢাকাকে ক্লিন করতে হবে, গ্রিন করতে হবে।

ট্যাগ: bdnewshour কাদের