banglanewspaper

ত্যাগের মহিমায় পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে সারা দেশে উদযাপন হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। হযরত ইব্রাহীম (আ.) এর প্রিয়পুত্র হযরত ইসমাইল (আ.)-এর কোরবানির পথ ধরেই আজও এই দিনটিতে ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা কোরবানি দিয়ে থাকেন। কিন্তু মৃত ব্যক্তির নামে কোরবানি দেয়া কি উচিৎ?

মৃতের পক্ষ থেকে কোরবানি করা জায়েজ। মৃত ব্যক্তি যদি ওসিয়ত না করে থাকে তবে সেটি নফল কোরবানি হিসেবে গণ্য হবে। কোরবানির স্বাভাবিক গোশতের মতো তা নিজেরাও খেতে পারবে এবং আত্মীয়-স্বজনকেও দিতে পারবে। আর যদি মৃত ব্যক্তি কোরবানির ওসিয়ত করে গিয়ে থাকে তবে এর গোশত নিজেরা খেতে পারবে না। গরিব-মিসকীনদের মাঝে সদকা করে দিতে হবে।
[মুসনাদে আহমদ ১/১০৭, হাদীস ৮৪৫, ইলাউস সুনান ১৭/২৬৮, রদ্দুল মুহতার ৬/৩২৬, কাযীখান ৩/৩৫২] 

মৃত ব্যক্তির ত্যাজ্য সম্পদ না থাকলে, কোরবানি দেওয়া ওয়াজিব নয়। নিজের সম্পদ থেকে দিলে তা নফল হিসেবে গণ্য হবে এবং সেটার গোশত নিজেরা খেতে পারবেন।

আয়শা (রা.) ও আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসে রাসুল (সা.) কোরবানির ইচ্ছা করলে দু’টি মোটাতাজা, মাংশল, শিংযুক্ত, ধুসর বর্ণের ও খাসিকৃত মেষ ক্রয় করতেন। অতঃপর এর একটি উম্মতের যারা আল্লাহর তাওহিদের ও তার নবুওয়ত প্রচারের সাক্ষ্য দেয়, তাদের পক্ষ থেকে এবং অপরটি মুহাম্মদ (সা.) ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে কোরবানি করতেন। (সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস: ৩১২২)

ট্যাগ: bdnewshour24