banglanewspaper

গেল ২১ এপ্রিল ব্যবসায়ী পাত্র ও প্রেমিক গোলাম ম. ইফতেখার গহীনের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী দিলশাদ নাহার কনা। এর আগেও অনেকবার গহীনের সঙ্গে কনার সম্পর্ক নিয়ে শোবিজ পাড়ায় গুঞ্জন ছিল। কিন্তু বরাবরই তা এড়িয়ে গেছেন গায়িকা। বারবারই তিনি বলতেন, গহীন তার ভালো বন্ধু। এরচেয়ে বেশি কিছু নয়। 

কিন্তু বিয়ের প্রায় সাড়ে তিন মাস পর সত্যিটা সামনে এলো। জানা গেল গোপনে বিয়ের খবর। আর সেটি কনা নিজেই গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। 

তবে কেন এতদিন বিয়ের খবর গোপন রেখেছিলেন? এমন প্রশ্নে কনা বলেন, ‘হুট করেই মুরব্বিরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। দুই পরিবারের উপস্থিতিতে ঘরোয়াভাবে বিয়েটা হয়েছে। তেমন কোনো আত্মীয় বা বন্ধুকে জানানোর সুযোগ পাইনি। শিগগির বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান করব। তখন ঘটা করে সবাইকে আমন্ত্রণ জানাব।’

একজন শিল্পী হিসেবে ব্যবসায়ী পাত্রকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নিলেন কেন? উত্তরে কনা বলেন, ‘আমি শিল্পী। সব সময় চেয়েছি এমন কেউ জীবনে আসুক যে আমার পেশাটাকে সম্মান করবে। পাশে থেকে উৎসাহ দেবে। গহীন সেটা করেছে। বেশির ভাগ সময় সে আমার রেকর্ডিংয়ে উপস্থিত থেকেছে, যেতে না পারলে ফোনে খবর নিয়েছে।’

তিন বলেন, ‘গত ৭টি বছর গহীনের সঙ্গে আমার ভালো-মন্দে মিলে দুর্দান্ত কেটেছে। আমরা পরস্পরের সঙ্গে মিশে গিয়েছি। জীবনে যেমন ছেলে চেয়েছিলাম গহীন ঠিক তেমনই একজন। আমি শুধু এটুকু বলতে পারি- মনের মতো স্বামী পেয়েছি। এ মুহূর্তে বিয়ে নিয়ে ঘোরের মধ্যে আছি। অন্যতম সুখের সময় পার করছি।’

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে প্রথম একক অ্যালবাম 'জ্যামিতিক ভালোবাসা'র টাইটেল গানটির মাধ্যমেই রাতারাতি সবার হৃদয়ে জায়গা করে নেন কণ্ঠশিল্পী কনা। এরপর তার দ্বিতীয় একক এলবাম ফুয়াদ ফিচারিং কনা বের হয় ২০০৮ সালে, আর তৃতীয় একক এলবাম “সিম্পলি কনা” বের হয় ২০১১ সালে। বর্তমানে তিনি দেশের একজন সুকণ্ঠী গায়িকা হিসেবে জনপ্রিয়। 

ট্যাগ: bdnewshour24