banglanewspaper

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধিঃ মান্নাফ খাঁ। বয়স ৫৭ বছর। পাঁচ ছেলে ও এক মেয়ের বাবা তিনি। অপর দিকে আকরাম খাঁ। বয়স ৫৫ বছর। তিনি এক ছেলে ও তিন মেয়ের বাবা। দুই জনই নড়াইল জেলার লোহাগড়া পৌর এলাকার ৬নং ওয়ার্ড গোপীনাথপুর গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দিন ভূঁইয়ার সহোযোগীতায় প্রায় দেড় বছর আগে পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডকে দুর্গন্ধ মুক্ত রাখতে কাজে যোগ দেন। এ কাজে তাদেরকে সকাল থেকে প্রায় বিকাল পর্যন্ত সময় লেগে যায়।

প্রতিটি বাড়ি থেকে ময়লা নিয়ে একটি নির্দৃষ্ট স্থানে গিয়ে ফেলতে হয় তাদেরকে। শুরুতে পৌর কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোন টাকা না পেলেও বর্তমানে প্রতি মাসে এক হাজার টাকা করে পাচ্ছেন তারা। এ কাজের জন্য ওয়ার্ডবাসী তাদেরকে পরিবার প্রতি একশ টাকা করে সম্মানি দেন।

একান্ত কথোপকথনে এই প্রতিবেদককে এসব কথা বলেন মান্নাফ ও আকরাম। তাদের দাবি, পৌর কর্তৃপক্ষ যেন সম্মানির পরিমানটা একটু বৃদ্ধি করবেন। কাজী আশরাফ এই ওয়ার্ডেরই একজন বাসিন্দা। তিনি দৈনিক করতোয়া ও ভোরের দর্পণ পত্রিকার স্থানীয় প্রতিনিধি।

কথা প্রসংগে এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ঈদুল আযাহার তৃতীয় দিনে বাড়ি থেকে বের হবার সময় দেখা হয় মান্নাফ ও আকরামের সাথে। কুশল বিনিময় শেষে জানতে চাই কেমন কাটল ঈদ। কথা শেষ না হতেই বুঝে গেলাম পরিবারের সদস্যদের মুখে হাঁসি ফোঁটাতে গিয়ে পুরাতন কাপড়েই ঈদের নামাজ আদায় করতে হয়েছিল তাদেরকে।

মান্নাফ ও আকরামের মত আমার বাবাকেও অনেক ঈদ পুরাতন পোশাকেই করতে হয়েছে। এখনও অনেক বাবাই এমনটা করতে বাধ্য হন। আমি মনে করি সেই জায়গাটার পরিবর্তন আনা দরকার। তাই তাদেরকে আমার পক্ষ থেকে সামান্য ঈদ উপহার দিয়েছি মাত্র।

ট্যাগ: bdnewshour24 লোহাগড়া ঈদ উপহার