banglanewspaper

এম,লুৎফর রহমান, নরসিংদী: নরসিংদী সদর উপজেলার চরাঞ্চলের আলোকবালি ইউনিয়নের একটি বাড়ি থেকে ৬২টি ককটেল, ১৪০টি টেঁটা ও ৫টি রামদা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৯ আগস্ট) বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ইউনিয়নের খোদাদিলা গ্রামের আলাউদ্দিন (৪০) নামে এক ব্যক্তির বসত বাড়ি হতে এসব অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। 

খবর পেয়ে আজ মঙ্গলবার ও গতকাল সোমবার দুই দফায় উদ্ধার করা এসব ককটেল নিস্ক্রিয় করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বোম ডিসপোজাল ইউনিটের একটি দল। 

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার। পুলিশ সুপার জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ও স্থানীয় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে খোদাদিলা গ্রামের মৃত আব্দুল হাই এর ছেলে জাকির হোসেন (৪৫) গ্রুপের সাথে একই এলাকার কাছম আলীর ছেলে হাসান (৬৫) গ্রুপের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে।

এরই জের ধরে গত রবিবার ও সোমবার দুই গ্রুপের মধ্যে দুই দফায় হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় ১০/১৫টি বাড়ি ঘর ভাংচুর করা হয়। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শাহেদ আহম্মেদ এর নেতৃত্বে নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দুজ্জামান ও পরিদর্শক (তদন্ত) সালাহ উদ্দিন ও সঙ্গীয় ফোর্স পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এসময় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে খোদাদিলা গ্রামের মৃত জুলমত আলীর ছেলে আলাউদ্দিন এর বসত ঘর হতে ৮টি বালতির মধ্যে রাখা লাল, কালো ও হলুদ রংয়ের স্কচটেপ মোড়ানো ৬২ টি ককটেল, ঘরের বারান্দায় রাখা ১৪০টি টেঁটা ও ৫টি রামদা উদ্ধার করা হয়। 

পরে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বোম ডিসপোজাল ইউনিটের একটি দল গতকাল ঘটনাস্থলের অদূরে একটি মাঠে ও আজ দুপুরে নরসিংদী শহর পুলিশ ফাঁড়ির মাঠে দুই দফায় ককটলেগুলো নিষ্ক্রিয় করেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার।

এদিকে স্থানীয়রা জানিয়েছেন গতকাল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর জাকির গ্রুপের লোকজন প্রতিপক্ষের লোকজনকে এলাকা থেকে বের করে দিয়েছে। এনিয়ে আবারও উত্তেজনা বিরাজ করছে এলাকায়।

ট্যাগ: bdnewshour24 আলোকবালী