banglanewspaper

মাগুরা প্রতিনিধি: মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার  তারাউজিয়াল গ্রামে বুধবার সকালে এক মা ধারালো বটি দিয়ে তার কিশোর ছেলেকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে।

গুরুতর জখম অবস্থায় ওই কিশোরকে চিকিৎসার জন্য প্রথমে মাগুরা ২৫০ শয্যা ও পরে আশংকাজনক অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহত সাকিনের চাচি আয়েশা আক্তার জানান, সকালে ৮ টার দিকে তার দেবর তারাউজিয়াল গ্রামের মন্নু মিয়ার স্ত্রী মলিনা বেগম ঘুমন্ত অবস্থায় থাকা তার ১৪ বছর বয়সী ৭তম শ্রেনী পড়ুয়া ছেলে সাকিনকে ধারালে বটি দিয়ে গলাসহ ঘাড়ের একাধিক স্থানে কুপিয়ে গুরুত্বর জখম করে।

এ সময় মন্নু মিয়া ও তার প্রতিবেশিরা রক্তাত্ব জখম অবস্থায় শাকিলকে উদ্ধার করে প্রথমে মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে আশংকাজনক অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজে  হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সাকিনের মা মলিনা বেগম মানসিক ভাবে কিছুটা বিকারগ্রস্ত। মাঝে মাঝে বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ে সে। সম্প্রতি সে সন্তানদের হত্যা করে নিজেও মরার হুমকি দিয়ে আসছিলো বলে জানান তিনি।

শ্রীপুর থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই হামিদুর রহমান জানান, ঘটনার পর তারা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মলিনা বেগমকে থানায় নিয়ে এনেছেন। তবে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে, মলিনা বেগম মানসিক ভারসাম্যহীন। তবে পরিবারে অভিযোগের ভিত্তিতে তার বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ট্যাগ: bdnewshour24 মাগুরা কুপিয়ে হত্যা