banglanewspaper

পশুদের প্রতি অনেকেরই প্রেম দেখা যায়। অনেকে পশু প্রেমে নানা কান্ড-কারখানা ঘটান। তবে এবার যেটি হলো তা শুনে অবাকই হতে হয়। রাস্তার বেওয়ারিশ কুকুরদের মাংস-ভাত খাওয়াতে ৩ লক্ষ টাকা ঋণ নিলেন এক মহিলা!

এই অভিনব মানবিক কাজটি করছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের খড়গপুরের বাসিন্দা নীলাঞ্জনা বিশ্বাস। ছোটবেলা থেকেই তিনি পশু-পাখি প্রেমী হিসেবে পরিচিত।  

নীলাঞ্জনা বিশ্বাস বলেন, ‘পথ কুকুরদের প্রতিদিন দুপুরে মুরগির মাংস ও ভাত খাওয়ানো হয়। এজন্য তিনজন কর্মী রয়েছেন। তাদের বেতন বাবদ ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়। কর্মী সঞ্জীব দাস টোটো চালিয়ে কল্যাণী শহরের বিভিন্ন অঞ্চলে কুকুরের খাবার নিয়ে যান।’ নীলাঞ্জনা দেবী নিজের স্কুটারে করেও কুকুরের জন্য খাবার নিয়ে যান বলে জানান। তার ছেলে আশুতোষ‌ও এ কাজে তাকে সহায়তা করে।

নীলাঞ্জনা বিশ্বাস প্রতিদিন  প্রায় ৪০০টি কুকুরকে মাংস-ভাত খাওয়ান।  তিনি। এজন্য প্রতি মাসে তার প্রায় ৪০ হাজার টাকা ব্যয় হয়। প্রায় দুই বছর যাবত তিনি এ কাজটি করে যাচ্ছেন।  

মানবিক এ কাজে অর্থ জোগাতে না পেরে নীলাঞ্জনা বিশ্বাস ব্যাংক থেকে ৩ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা ঋণও নিয়েছিলেন! এছাড়াও নিজের প্রায় ২ লক্ষ টাকার সোনার গয়না বেচে কুকুরদের খাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন।

নীলাঞ্জনা বিশ্বোসের বাড়িতে কুকুরের খাবার রান্নার জন্য আলাদা ঘর রয়েছে। রয়েছে মাংস রাখার জন্য ফ্রিজও। শুধু পশু নয়, দুঃস্থ মানুষকেও সাহায্য করেন নীলাঞ্জনা।

কুকুরের এ খাবার দেয়া নিয়ে তিনি বলেন, ‘ঋণ করেও রাস্তার কুকুরদের খাইয়ে চলেছি। কিন্তু আমি মেহ ও হার্টের রোগী। ভবিষ্যতে এদের কী হবে তাই নিয়ে আমি চিন্তিত। কল্যাণী পৌরভার কাছে কুকুরগুলোর পুনর্বাসনের আবেদন করে সাড়া পাইনি। যদি পৌরসভা এদের জন্য কিছু করে তবে শান্তি পাব।’
 

ট্যাগ: bdnewshour কুকুর